রাত ১০:৩৩ ; শুক্রবার ;  ২২ মার্চ, ২০১৯  

অতীতের ভুলের জন্য ক্ষমা চাইলেন অনুপ চেটিয়া

প্রকাশিত:

বিদেশ ডেস্ক।।

অতীত ভুলের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন ভারতের আসাম রাজ্যের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন উলফা’র সাধারণ সম্পাদক অনুপ চেটিয়া। তিনি বলেছেন, তাকে দেশে ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য ভারত সরকারের কাছে তিনি কৃতজ্ঞ। একই সঙ্গে তিনি সরকারের সঙ্গে শান্তি আলোচনায় বসতেও প্রস্তুত রয়েছেন।

সোমবার গৌহাটির একটি আদালতে হাজিরা দেওয়ার পর এসব মন্তব্য করেন আলোচিত এই উলফা নেতা।

অনুপ চেটিয়া বলেন, ‘আমাদের অতীত ভুলের জন্য আমি আসামের জনগণের কাছে ক্ষমা চাইছি। আমাদের বিপ্লবের বিরোধিতা করার কারণে যাদের প্রাণ হারাতে হয়েছে, আমি তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছি এবং তাদের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।’

অনুপ চেটিয়া বলেন, ‘অনেকের সন্দেহ, সরকারের সঙ্গে আমি শান্তি আলোচনায় বসব না। কেউ কেউ ভাবছেন, আমি পালিয়ে যাব। তবে আমি শান্তি আলোচনার পক্ষে।’

১৫ বছর বাংলাদেশের কারাগারে বন্দী ছিলেন অনুপ চেটিয়া। পরে তাকে দেশে ফিরিয়ে নেয় ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে অনুপ চেটিয়া বলেন, আমাকে ফিরিয়ে আনতে চেষ্টা করার জন্য আমি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং আসামের মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ-এর প্রতি কৃতজ্ঞ।

উল্লেখ্য, ১৯৭৯ সালের ৭ এপ্রিল আরও কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে উলফা প্রতিষ্ঠা করেন অনুপ চেটিয়া। তিনি সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক। দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে সশস্ত্র কর্মকাণ্ড চালানোর এক পর্যায়ে ভারত সরকার অনুপ চেটিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। ১৯৯১ সালে তাকে গ্রেফতার করে আসাম সরকার। কিন্তু কিছু দিন পরই জামিন পেয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন তিনি। দীর্ঘদিন আত্মগোপনে থাকার পর ১৯৯৭ সালের ২১ ডিসেম্বর রাজধানীর মোহাম্মদপুরের একটি বাসা থেকে দুই সঙ্গীসহ গ্রেফতার হন অনুপ চেটিয়া। ভারতের কাছে হস্তান্তরের আগে তিনি কাশিমপুর কারাগারে বন্দী ছিলেন। সূত্র: দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

/এমপি/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।