বিকাল ০৫:২৪ ; মঙ্গলবার ;  ২০ নভেম্বর, ২০১৮  

বর্ণিল মাছের গ্রিল

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

নুসরাত সুবর্ণা।।

 কত রংয়ের, কত স্বাদের মাছ আমাদের বিল-ঝিল-পুকুর-নদী-সাগর জুড়ে। আর কতই না পদের মাছ বাংলার ঘরে ঘরে, ভাতের পাতে! একেক পদের একেক রূপঃ সনাতন, আধুনিক, ফিউশন ...

তবে পিকনিক বা দাওয়াতের মাছের পদ হতে হবে একেবারে অন্যরকম, উৎসবমুখর। বর্ণিল। যেকোনও বড় বা মাঝারি সাইজের মাছ গ্রিল করুন। মাংসের নানা চটকদার ডিশের ভিড়ে মাছের এ পদ ভিন্নতা আনতে বাধ্য। একদম ঝটপট রেসিপি আপনার জন্য।

উপকরণঃ

১/২ কাপ অলিভ অয়েল

৩ টেবিল চামচ ফ্রেশ পুদিনা/পার্শলে/ধনিয়া পাতা। কুচিয়ে কাটা। একমুঠো পাতা না কেটে এক পাশে সরিয়ে রাখুন

৩ টেবিল চামচ লেবুর রস

১ কোয়া রসুন। মিহি করে কুচোনো

লবন ও গোল মরিচ- স্বাদ মতো

কয়েকটি লেবুর টুকরা

যেকোনো বড়/মাঝারি সাইজের মাছ। রুই, কোরাল, রূপচাঁদা, স্যামন, স্ন্যাপার যেকোনও মাছ হতে পারে। এখানে রেড স্ন্যাপার ব্যবহার করা হয়েছে।  

প্রণালী:

একটি বাটিতে প্রথম পাঁচটি উপকরণ ভালভাবে মিশিয়ে নিন। মিনিট দশেক অপেক্ষা করুন। সমস্ত সুগন্ধ একসাথে মিশতে দিন।

আগে থেকে ধুয়ে পরিষ্কার করে রাখা, শুকনো কাপড়ে মুছে নেওয়া মাছের গায়ে এবং পেটের ফুটোর ভেতর এই সুগন্ধী মিশ্রণ মালিশ/ব্রাশ করুন ভালভাবে।

মাছের পেটের ফুটোয় লেবুর টুকরোগুলো এবং এক মুঠো পুদিনা/পার্শলে/ধনিয়া পাতা ডালপালাসহ ঢুকিয়ে দিন।

ঘরের বাইরে গ্রিল চুলো জ্বালিয়ে দিন। মাঝারি তাপমাত্রায় গরম করুন। অথবা ভেতরে গ্রিল-প্যান চুলায় চাপান। মিডিয়াম-হাই হিট। চাইলে সামান্য তেল গ্রিলে ব্রাশ করতে পারেন।

গরম গ্রিলে মাছ ছেড়ে দিন। ছয় থেকে দশ মিনিট গ্রিল করুন। এর ভেতর মাছ উল্টানোর চেষ্টা করবেন না। একবারে ৬-১০ মিনিট পরে মাছ উলটে দিন। চ্যাপ্টা কাঠের বা প্লাস্টিকের স্প্যাচুলা/খুন্তি দিয়ে মাছ উল্টান। এতে করে মাছ ভেঙ্গে যাবার সম্ভাবনা কম থাকে। অপর পিঠ গ্রিল করুন ৬-১০ মিনিট।

সময় সামান্য কম-বেশি লাগতে পারে। মাছের সাইজের উপর এর গ্রিলিং টাইম নির্ভর করবে।

গরম ভাত, সালাদযোগে উপভোগ করুন।

ছবি: লেখক।  

/এফএএন/

 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।