দুপুর ০২:৩০ ; মঙ্গলবার ;  ১৯ নভেম্বর, ২০১৯  

নারায়ণগঞ্জে স্কুল ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ: পরিবারের দাবি আত্মহত্যা

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি।।

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় মানছুরা আক্তার (১১) নামে এক স্কুলছাত্রীর  গলায় ফাঁস দেওয়া ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার পরিবারের দাবি, কয়েক দিন আগে মানছুরাকে ধর্ষণ করা হয়। শুক্রবার বিকেলে এ সংক্রান্ত সালিসি বৈঠক আয়োজনের খবর শুনে লজ্জায় সকালে ফাঁস দিয়ে সে আত্মহত্যা করে।

শুক্রবার সকালে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। তবে পুলিশ বলছে, পরিবারের পক্ষ থেকে আগে ধর্ষণের কোনও খবর জানানো হয়নি।

মানছুরা আক্তার বন্দর উপজেলার মালিবাগ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী।

মানছুরার বাবা জাকির হোসেন জানান, গত সোমবার সন্ধ্যায় তার মেয়েকে বাড়িরে পাশের একটি জঙ্গল থেকে বিবস্ত্র অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। তখন একই এলাকার মোতালেব বাক্কুর ছেলে গার্মেন্ট শ্রমিক হাবিবুর রহমানকে পালিয়ে যেতে দেখেন তিনি। পরে মানছুরা জানায়, তাকে হাবিবুর মুখ চেপে ধরে জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করেছে।

ঘটনাটি এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে তারা সালিশ বৈঠকের মাধ্যমে সমাধান করে দেওয়ার আশ্বাস দেয়। শুক্রবার বিকালে সালিশ বৈঠক বসার কথা ছিল। জাকির জানান, সালিশ বৈঠকের কথা শুনে অপবাদ সইতে না পেরে নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে মানছুরা।

তিনি আরও জানান, ‘মামলা করলে অনেক ঝামেলা হতো। তাই পুলিশকেও জানাই নাই। এলাকার গণ্যমান্যদের জানিয়েছি। তারা সালিস করার কথা বলেছিল।’

বন্দর থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, লাশ উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মানছুরাকে ধর্ষণ করা হয়েছে কিনা সেব্যাপারে চিকিৎসকের মতামত চাওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় আপাতত থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

/আরএ/এফএস/

 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।