রাত ০৩:৫৬ ; রবিবার ;  ১৬ জুন, ২০১৯  

চিনি মজুদ রেখেই আখ মাড়াই শুরু জয়পুরহাটে

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

জয়পুরহাট প্রতিনিধি।।

গত তিন বছরের উৎপাদিত ৫ হাজার ৯৩৭ মেট্রিক টন চিনি মজুদ রেখেই চলতি মৌসুমে আখ মাড়াই শুরু হয়েছে জয়পুরহাট চিনিকলে। এ বছর ৭ হাজার ৫১২ একর জমিতে চাষ করা হয় ৬৫ হাজার মেট্রিক টন আখ। যা থেকে ৫ হাজার মেট্রিক টন চিনি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে কর্তৃপক্ষ। শুক্রবার সকাল ১০টায় অনুষ্ঠানিকভাবে আখ মাড়াই মৌসুমের উদ্বোধন করেন জয়পুরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সামছুল আলম দুদু।

চিনিকল সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকালে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর জয়পুরহাট চিনিকলের ৫৩তম আখ মাড়াই মৌসুম শুরু হয়েছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন, বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান এ কে এম দেলোয়ার হোসেন।

চিনিকলে গত ২০১১-২০১২অর্থ বছরে ৩৪.৮৫ মেট্রিক টন, ২০১৩-২০১৪ অর্থ বছরে ৬৩৯ এবং ২০১৪-২০১৫ অর্থ বছরে ৫ হাজার ২৬৩ মেট্রিক টন চিনি অবিক্রিত রয়েছে। যার মূল্য ২১ কোটি ৯৬ লাখ ৮৫ হাজার ৬৫০ টাকা।

কৃষকদের অভিযোগ, আখ মাড়াই করে তাদের লোকসান হচ্ছে। তারা আখের নায্য মূল্য পাচ্ছেন না। এজন্য তারা আখের পরিবর্তে অন্য ফসল চাষের দিকে ঝুঁকছেন। গত অর্থবছরে চিনিকলের অধীনে আখ চাষ হয়েছিল ৯ হাজার ১৪ একর জমিতে। কিন্তু এবার তা কমে চাষ হয়েছে ৭ হাজার ৫১২একর জমি। এক বছরে এক হাজার ৫০২একর জমিতে আখ চাষ কম হয়েছে।

কৃষকদের কথা বিবেচনা করে গতবারের তুলনায় এবার প্রতি মণ আখের দাম ১০ টাকা এবং প্রতি কুইন্টালে ২৫ টাকা বাড়িয়ে ১০০ টাকার স্থলে ১১০ টাকা ও আড়াইশ টাকার স্থলে পৌণে তিনশ টাকা নির্ধারণ করেছে চিনিকল কর্তৃপক্ষ।

জয়পুরহাট চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আব্দুস সালাম জানান, চলতি মৌসুমে ৬৫ হাজার মেট্রিক টন আখ মাড়াই করে ৫ হাজার মেট্রিক টন চিনি উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। তার দাবি, বাজারে চিনির চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় চিনি বিক্রি নিয়ে কোনও সমস্যা হবে না।

 

/এসটি/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।