দুপুর ০৩:২৭ ; মঙ্গলবার ;  ১২ নভেম্বর, ২০১৯  

যমুনার বাবুলের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বাবুল ও যুগান্তর পত্রিকার সাংবাদিক হেলাল উদ্দিনের বিরুদ্ধে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এর করা সাধারণ ডায়েরি (জিডি) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালত।

বৃহস্পতিবার রমনা থানার পুলিশ পরিদর্শক মো. আলী হোসেন সাধারণ ডায়েরিটি তদন্তের জন্য আদালতের অনুমতি আবেদন করেন। এরপর মহানগর হাকিম জাহাঙ্গীর হোসেন তা মঞ্জুর করে জানান, তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করে তদন্ত কর্মকর্তাকে আগামী ৭ জানুয়ারি বিষয়টি আদালতকে অবহিত করতে হবে।

এনবিআর চেয়ারম্যান এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জীবন ও সম্মানহানির আশঙ্কা থেকে যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বাবুল এবং ওই গ্রুপের পত্রিকা যুগান্তর-এর সাংবাদিক হেলাল উদ্দিনের বিরুদ্ধে গতকাল বুধবার একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি নম্বর ৬২৪) করা হয়।

এনবিআরের পক্ষে রমনা মডেল থানায় জিডিটি করেন এনবিআরের দ্বিতীয় সচিব (বোর্ড প্রশাসন) এ এইচ এম আবদুল করিম।

এরআগে এনবিআর চেয়ারম্যান নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক বিশেষ বোর্ড সভায় এ জিডি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বুধবার সন্ধ্যায় এনবিআরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। জিডিতে যমুনা গ্রুপের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের রাজস্ব অনিয়মের চিত্রও তুলে ধরা হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, গত ২৯ অক্টোবর ও ১, ১৮, ২৪ ও ৩০ নভেম্বর এবং ৭ ও ৯ ডিসেম্বর যুগান্তর পত্রিকায় এনবিআর চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অমার্জিত ও শিষ্টাচারবিবর্জিত ভাষায় সম্পূর্ণ কাল্পনিক ও প্রতিহিংসামূলক মোট সাতটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। কোনও কোনও ক্ষেত্রে সত্যকে বিকৃত করে তা প্রকাশ করা হয়।

যমুনা গ্রুপের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ২৫৮ কোটি টাকার মামলা রয়েছে বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে যমুনা গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে জারা এক্সেসরিজ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, এমকাবা লিমিটেড, হংকং গার্মেন্টস লিমিটেড এবং যমুনা টেলিভিশনের বিভিন্ন অনিয়মের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

/ইউআই/এনএস/এফএ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।