রাত ১২:৪০ ; শুক্রবার ;  ১৮ অক্টোবর, ২০১৯  

রায় শুনে কান্নায় ভেঙে পড়লেন সালমান, ভক্তদের উল্লাস

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বিনোদন ডেস্ক।।

হিট অ্যান্ড রান মামলায় বলিউড তারকা সালমান খান খালাস পেয়েছেন। বৃহস্পতিবার মুম্বাই হাইকোর্ট সালমানকে অভিযোগ থেকে মুক্তি দেয়। আদালতে পরিবারের সঙ্গে উপস্থিত সালমান রায় শুনে ভেঙে পড়েন। রায় ঘোষণার পর সালমান ভক্তরা ‘কিক’ সিনেমার গান ‘জুম্মে কি রাত হে’ গেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে।

রায়ের পর প্রতিক্রিয়ায় সালমান বলেন, ‘নিম্ন আদালতের রায় ছিল পক্ষপাতপূর্ণ।’ বৃহস্পতিবার হাইকোর্ট রায়ে বলেছেন, প্রসিকিউশন যেসব প্রমাণাদি হাজির করেছেন তাতে সালমানকে অভিযুক্ত করা যায় না।

মুম্বাইয়ে সালমানের বাসায় সামনে তার ভক্ত জড়ো হয়ে উল্লাস করে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই বান্দ্রার গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্ট পরিণত হয় ভক্তদের সমুদ্রে। দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে বিচারক যখন রায় ঘোষণা করেন তখন শুধু সালমানের সন্তানসম্ভবা বোন অর্পিতা বাসায় উপস্থিত ছিলেন। রায় ঘোষণার এক ঘণ্টা আগে সালমান কারজাট স্টুডিওতে ‘সুলতান’-এর শ্যুটিং থেকে গাড়ি চালিয়ে আদালতে উপস্থিত হন। এর আগে সকালেই সালমানের বাবা সেলিম খান অ্যাপার্টমেন্ট ত্যাগ করেন। বোন আলভিরা ও দেহরক্ষী শেরাও আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

বিকালে ভক্তদের সঙ্গে মিডিয়ার লোকেরাও জড়ো হতে থাকে, বাড়ানো হয় পুলিশের উপস্থিতি। বেশ কিছু ভক্ত এসেছেন কলকাতা ও নাগপুরের মতো দূরের এলাকা থেকে।

কাশ্মির থেকে আসা এক নারী ভক্ত বলেন, ‘আমরা হাঁফ ছেড়ে বাঁচলাম। হয়ত সালমান ভুল করেছেন কিন্তু তা দুর্ঘটনাবশত।’

পড়ন্ত বিকালে গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টের সামনের রাস্তায় জড়ো ভক্তদের সংখ্যা ধীরে ধীরে কমতে থাকে। ভক্তরা এসময় ২০১৪ সালে মুক্তি পাওযা সালমানের কিক সিনেমার জুম্মে কি রাত গান গেয়ে  ও সমস্বরে হিপ হিপ হুররে চিৎকারে উল্লাস করে। এনডিটিভিকে ভক্তরা জানায়, তারা সালমানের পরবর্তী সিনেমা `সুলতান’-এর অপেক্ষা করছেন। সালমানের ৫০তম জন্মদিন পালনের প্রস্তুতিও আগে থেকে শুরু হয়ে গেছে বলে জানান তারা।

এই ডিসেম্বরের ২৭ তারিখ সালমানের ৫০ বছর পূর্ণ হতে যাচ্ছে। আজ বাসায় ফিরলে উষ্ণ অভ্যর্থনা পাবেন বলে আশা করা হচ্ছে। সালমানের এক প্রতিবেশি আশঙ্কা করছেন রাস্তায় যানজট লাগতে পারে।

চলতি বছরের মে মাসে যখন দায়রা বিচারিক আদালত সালমানকে দোষী সাব্যস্ত করেন তার অ্যাপার্টমেন্টে তারকাদের পদচারণা ছিল। এসেছিলেন শাহরুখ খান, আমির খান, হৃত্কিক রোশান, প্রীতি জিনতা ও সোনাক্ষী সিনহা।

এবার বৃহস্পতিবার সকালে শুধু মুম্বাইয়ের রাজনীতিক বাবা সিদ্দিক এসেছিলেন।  এনডিটিভিকে তিনি বলেন, ‘ আমাদের আশঙ্কা দূর হলো। সালমানের পরিবার, বন্ধু-বান্ধব ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের জন্য এটা সুসংবাদ।’

টুইটারে বলিউড তারকাদের পক্ষ থেকে সালমানকে অভিনন্দন জানানোর হিড়িক পড়েছে। হিরো সিনেমার সহ-পরিচালক সুভাষ ঘাই টুইটে লিখেছেন, ‘ঈশ্বর ভালো মানুষের প্রতি সব সময় সদয় ছিলেন।’ ২০০৫ সালে সালমানের ‘লাকি: নো টাইম ফর লাভ’ সিনেমার চিত্রনাট্য লেখক মিলাপ জাভেরি লিখেছেন, ‘ন্যায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।’

২০০২ সালের সেপ্টেমরে মাতাল অবস্থায় গাড়ি চালিয়ে এক পথচারীকে হত্যার অভিযোগ আনা হয় সালমানের বিরুদ্ধে। চলতি বছরের মে মাসে সালমানকে দোষী সাব্যস্ত করে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয় দায়রা আদালত। নিম্ন আদালতের এই রায়ের দুই দিন পর সালমান হাইকোর্ট থেকে জামিন পান।

এ বছর সালমান খান দুটি ব্লক বাস্টার সিনেমা উপহার দিয়েছেন। সিনেমা দুটি হচ্ছে বজরঙ্গি ভাইজান ও প্রেম রতন ধন পায়ো। শুধু ভারতেই ৫০০ কোটি রুপি কিরে আয় করেছে সিনেমা দুটি।

/এএ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।