সন্ধ্যা ০৭:০৩ ; বৃহস্পতিবার ;  ১৮ জুলাই, ২০১৯  

‘কৃষি, শিক্ষা ও গবেষণায় কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে চুক্তি’

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে গবেষণা ধর্মী কার্যক্রম ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্রের কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয়েন সঙ্গে চুক্তি করেছে দেশের আটটি বিশ্ববিদ্যালয়।

আজ বুধবার রাজধানীর বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন ইউজিসি’র মিলনায়তনে, যুক্তরাষ্ট্রের কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অলাভজনক প্রকল্প `দ্য এসেনশিয়াল ইলেকট্রনিক এগ্রিকালচারাল লাইব্রেরি (টীল)’ ও বাংলাদেশের ৮টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে এ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

এ চুক্তির আওতায় কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয় কৃষি, মৎস্য সংক্রান্ত ডিসিপ্লিনে ই-রিসোর্স, তিনশ ২৫টি রেফারেন্স জার্নাল এবং চারলাখ ২৯ হাজারের অধিক ফুলটেক্সট আর্টিকেল সরবরাহ করবে।

চুক্তি হওয়া বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হচ্ছে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারী এন্ড এনিমেল সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয় ও সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

ইউজিসি’র সূত্র জানায়, চুক্তি অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালগুলো শিক্ষক, গবেষক ও শিক্ষার্থীরা বিনামূল্যে ই-রিসোর্স ব্যবহার করে মৎস্য ও কৃষি সংক্রান্ত বিষয়ে জ্ঞান ও দক্ষতা উন্নয়নের সুযোগ পাবেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান বলেন, ‘এ চুক্তির ফলে শিক্ষক, গবেষক ও শিক্ষার্থীরা কৃষি ও মৎস্য সংক্রান্ত গবেষণায় আত্ম-নিয়োগ করে দেশ ও জাতীয় উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের যে চুক্তি হয়েছে, তাতে আমাদের শিক্ষার্থীরা তাদের দক্ষতা ও মান উন্নয়নের আরও সুযোগ পাবে।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন প্রকল্প পরিচালক টীল কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয়ের  জয় পলসুন, ইউজিসি সদস্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ইউসুফ আলী মোল্লা, ইউজিসি’র সচিব ড. মো. খালেদ,  সাথগুরু ম্যানেজমেন্ট কনসালটেন্টস প্রাইভেট লিমিটেডের চেয়ারম্যান কে বিজয়রাঘাভন প্রমুখ।

 

/এসআইএস /এআই /

 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।