দুপুর ০১:৩৪ ; মঙ্গলবার ;  ১৩ নভেম্বর, ২০১৮  

বিচ্ছেদের বিষয়টি প্রায় চূড়ান্ত: বাঁধন

প্রকাশিত:

ওয়ালিউল মুক্তা।।

২০১০ সালের ৮ সেপ্টেম্বর দুই পরিবারের সম্মতিতে বিয়ে হয় লাক্সতারকা আজমেরী হক বাঁধন ও ব্যবসায়ী সনেটের। এরপর সুখের খবরই ছিল। বাঁধনের কোলজুড়ে আসে একমাত্র মেয়ে মিশেল। কিন্তু হঠাৎ শোনা গেল, দাম্পত্য জীবনে ছেদ পড়ার কথা। এখন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিচ্ছেদের। নাটক ও মডেলিংয়ের জনপ্রিয় এ মুখ বাংলা ট্রিবিউনের সঙ্গে কথা বলেছেন বিষয়টি নিয়ে-

বাংলা ট্রিবিউন: হঠাৎ কেন বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত?
বাঁধন: এটা বর্তমানের সিদ্ধান্ত নয়। প্রায় দেড় বছর হলো এ বিষয়টির। তখন থেকেই আলাদা থাকছি। মেয়ে আমার সঙ্গে থাকছে। তালাকের বিষয়ে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে শিগগির ঘোষণা আসতে পারে।

ট্রিবিউন: কেন এ সিদ্ধান্তে যেতে চাচ্ছেন?
বাঁধন: এটা নিয়ে বিস্তারিত না বলাই ভালো। দুই পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বিয়েটি হয়। আসলে দুই পরিবারের পছন্দেই এটি হয়েছিল। এরপর নানা জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে। আমরা বিচ্ছেদের যে সিদ্ধান্ত নিয়েছি, তা বেশ ঠাণ্ডা মাথায়। দু’জনের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ বজায় রেখে আমরা এ কাজটি করছি। হয়তো আমি তার (সনেট) বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারি বা সে আমার বিরুদ্ধে, কিন্তু তাতে লাভটা কী? আমরা বেশ বুঝেশুনে কাজটি করছি।

ট্রিবিউন: আপনারা তো দীর্ঘদিন ধরে আলাদা আছেন। সম্পর্ক জোড়া লাগতে পারে- এটা কখনও মনে হয়েছে?
বাঁধন: হতে পারে। তবে বর্তমান অবস্থা বেশ বৈরি।

ট্রিবিউন: এতদিন বিষয়টি গোপন রাখার কারণ কী?
বাঁধন: আসলে আমার মেয়ের মুখের দিকে তাকিয়ে আমি একটু দেরি করছি। ও আরেকটু বড় হলে আমার জন্য সুবিধা হত।

ট্রিবিউন: আপনার মেয়ের বিষয়ে বলুন।
বাঁধন: মিশেল মাত্রই স্কুলে ভর্তি হয়েছে। আমাদের বিচ্ছেদের খবরটি যখন অন্যরা আমার মেয়েকে খারাপভাবে বলবে, সে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হবে। তার মনোজগতের যে বিপর্যয় আসবে তা হয়তো আমরা কল্পনাও করতে পারব না। সে একা একা এ বোঝা বয়ে বেড়াবে। সবার প্রতি আমার অনুরোধ, বিষয়টি ইতিবাচকভাবে দেখবেন।

ট্রিবিউন: কবে নাগাদ আপনারা তালাকনামার আনুষ্ঠানিকতা চূড়ান্ত করবেন?
বাঁধন: শিগগিরই হতে পারে। 
 

ছবি: সাজ্জাদ হোসেন

/এম/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।