রাত ১২:১৩ ; মঙ্গলবার ;  ১৭ জুলাই, ২০১৮  

শতভাগ সফলতা অর্জন না করা পর্যন্ত অভিযান: মির্জা আজম

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

শতভাগ সফলতা অর্জন না করা পর্যন্ত ধান, চাল, গম, ভুট্টা, সার ও চিনি সংরক্ষণ ও পরিবহনে পাটের বস্তার ব্যবহার নিশ্চিত করতে দেশব্যাপী ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম।

মঙ্গলবার রাজধানীর কলাপট্টি, যাত্রাবাড়ী ও বালুরমাঠ, পোস্তাগোলা বাজারের চালের আড়ৎগুলোয় অভিযানকালে বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম বলেন, এ আইন বাস্তবায়নের সময় ছিল ২০১৪ সাল। কিন্তু সব পক্ষের সাথে আলোচনা করে ২০১৫ সালের ৩০ নভেম্বর থেকে এ আইন বাস্তবায়নের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এ আইন বাস্তবায়নে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা তৎপর আছে। আপনারাও এগিয়ে আসুন পরিবেশবান্ধব এ আইন বাস্তবায়নে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, মঙ্গলবার সারাদেশে বিকেল ৪টা পযর্ন্ত মোট ১০টি অভিযান পরিচালিত হয়। এতে মোট ২৩টি মামলা করে প্রায় ৪৬ হাজার ২০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) সহযোগিতায় এ অভিযান পরিচালনা করে ঢাকা জেলার নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মমিন উদ্দিন। এ সময় পাট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মুয়াজ্জেম হোসাইন উপস্থিত ছিলেন।

এ আইন পালনে ব্যবসায়ীসহ সকলের আন্তরিক সহযোগিতার জন্য দেশের সকল ব্যবসায়ীদের প্রতি কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেন মির্জা আজম।

তিনি বলেন, এ অভিযান মনিটরিংয়ের জন্য বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিবদের সমন্বয়ে ১০টি পৃথক তদারকি টিম গঠন করা হয়েছে। এ আইন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আগামী দুই মাসে যে পরিমাণ পাটের ব্যাগ বা বস্তার প্রয়োজন হবে তা ইতিমধ্যে মজুদ আছে। এ সব সরবরাহ করবে রাষ্ট্রায়াত্ব প্রতিষ্ঠান বিজেএসসি।                                                                                                             

প্রসঙ্গত, ‘কারাদণ্ড, অর্থদণ্ড, ব্যাংক ঋণ সুবিধা বন্ধ, লাইসেন্স বাতিল, আইআরসি বা ইআরসি বাতিলের বিধান রেখে ‘পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন-২০১০’ বাস্তবায়নে সাঁড়াশি অভিযান চালু আছে। এ আইনের ধারা ১৪ অনুযায়ী পাটের মোড়ক ব্যবহার না করলে অনূর্ধ্ব এক বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা হবে। এ অপরাধ পুনঃসংগঠিত হলে সর্বোচ্চ দণ্ডের দ্বিগুণ দণ্ডে দণ্ডিত করা হবে।

/এসআই/এফএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।