রাত ১২:৪৯ ; মঙ্গলবার ;  ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯  

মেয়াদ শেষে অ্যালায়েন্স ও অ্যাকর্ড এক সেকেন্ডও নয়: বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:

 

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

বাংলাদেশে তৈরি পোশাক কারখানার কর্মপরিবেশ নিয়ে কর্মরত ইউারোপীয় ক্রেতাদের জোট অ্যালায়েন্স এবং উত্তর আমেরিকান ক্রেতাদের জোট অ্যাকর্ড-এর মেয়াদ শেষ হচ্ছে ২০১৮ সালের ৩১ জুলাই।

ইতিমধ্যে তারা সরকারের কাছে এই মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করেছে। যুক্তরাষ্ট্রে অগ্রাধিকারমূলক বাজার সুবিধা (জিএসপি) সুবিধা বাতিল হওয়ায় এই দুই সংগঠনের মেয়াদ না বাড়ানোর বিষয়ে কঠোর অবস্থান নিয়েছে সরকার।

সোমবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরস্থ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড এক্সপো ফর বিল্ডিং অ্যান্ড ফায়ার সেফটি’র উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী এই দুই সংগঠনের মেয়াদ আর না বাড়ানোর বিষয়ে পরিস্কার করে বলেছেন, অ্যাকর্ড ও অ্যালায়েন্সের মেয়াদ একদিনও বাড়ানো হবে না। ২০১৮ সালের জুলাইয়ের পর সংগঠন দুটিকে বাংলাদেশে এক সেকেন্ডও থাকতে দেওয়া হবে না।

অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, যুক্তরাষ্ট্র জিএসপি সুবিধা বন্ধ করে দিলেও তাতে বাংলাদেশের কোনও ক্ষতি হয়নি। জিএসপি সুবিধা বন্ধ করার পরেও বাংলাদেশে রফতানি আয় বেড়েছে।

অ্যালায়েন্স ও অ্যাকর্ডকে সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেন, ভিয়েতনামে শ্রমিক ইউনিয়ন খুব শক্তিশালী। সে দেশে অ্যালায়েন্স প্রতিনিধিকে ঢোকার জন্য ভিসা পর্যন্ত দেওয়া হয়নি। অথচ আমাদের দেশে তাদের কার্যক্রম পরিচালনার সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, রানাপ্লাজা ধসের ঘটনায় বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। কিন্তু রানাপ্লাজাকে দিয়ে সমগ্র বাংলাদেশের চিত্র পরিমাপ করা ঠিক হবে না। বাংলাদেশের অধিকাংশ তৈরি পোশাক কারখানা নিয়ম কানুন ও তাদের শ্রমিকদের নিরাপত্তা পরিপূর্ণ করেছে।

অনুষ্ঠানে বিজিএমইএ’র সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, এলায়েন্স ফর বাংলাদেশ ফায়ার সেফটি’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক মেজবাহ রবিন, বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আলী আহমদ খান, ইলিভেট-এর সিইও আইএএন স্পাউলডিং উপস্থিত ছিলেন।

/এসআই/এফএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।