দুপুর ০২:৪৮ ; সোমবার ;  ২০ মে, ২০১৯  

বিতর্কের মধ্যেই প্রথমবারের মতো পাকিস্তান সফরে সুষমা

প্রকাশিত:

বিদেশ ডেস্ক।।

ভারত-পাকিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টাদের গোপন বৈঠকের খবর প্রকাশিত হওয়ার পর চলমান বিতর্কের মধ্যেই ভারত সরকার ঘোষণা দিল মঙ্গলবার পাকিস্তান সফরে যাচ্ছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। নরেন্দ্র মোদির বিজেপির সরকারের ক্ষমতা গ্রহণের পর এটাই হবে সুষমার প্রথম পাকিস্তান সফর।

আফগানিস্তান ইস্যু নিয়ে মঙ্গলবার (৮ ডিসেম্বর) থেকে পাকিস্তানে আয়োজিত এক আঞ্চলিক সম্মেলনে যোগ দিতে ইসলামাবাদ সফরে যাচ্ছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। এরইমধ্যে ভারত সরকারে সুষমা স্বরাজের পাকিস্তান সফরের খবরটি নিশ্চিত করেছে বলে জানিয়েছে দেশটির গণমাধ্যম। আসছে ৮ ডিসেম্বর পাকিস্তানের ইসলামাবাদে অনুষ্ঠিত হবে তিন দিনব্যাপী ‘দ্য হার্ট অব এশিয়া কনফারেন্স অন আফগানিস্তান’। সম্মেলনে যোগ দেবে ২৭টি দেশ। খবরটি ঠিক থাকলে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ক্ষমতাগ্রহণের পর এটাই হবে কোনও ভারতীয় মন্ত্রীর প্রথম ইসলামাবাদ সফর।

এদিকে পার্লামেন্টে না জানিয়ে ব্যাংককে পাকিস্তানের সঙ্গে নিরাপত্তা উপদেষ্টা পর্যায়ের গোপন বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ায় মোদি সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানিয়েছে বিরোধী দলগুলো। আর সে বিতর্কের মধ্যেই মোদি সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হল যে পাকিস্তান সফরে যাচ্ছেন সুষমা।  

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, মঙ্গলবার পাকিস্তান সফর করবেন সুষমা। সফরকালে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ ও দেশটির পররাষ্ট্র সচিব সরতাজ আজিজের সঙ্গে তার বৈঠক করার কথা রয়েছে। সফরে সুষমার সঙ্গে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব এস জয়শঙ্করেরও থাকার কথা রয়েছে। সুষমার পাকিস্তান সফরের খবরটি নিশ্চিত করেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য হিন্দু এবং টাইমস অব ইন্ডিয়াও। তবে তাদের খবরে বলা হয়, মঙ্গলবার নয়, বুধবার পাকিস্তান সফরে যাবেন সুষমা। অন্যদিকে মঙ্গলবারই সুষমার পাকিস্তান সফরের খবর জানিয়েছে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম ডন।

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের বরাতে হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, এক মাসেরও বেশি সময় ধরে পাকিস্তান সফরে যাওয়ার আমন্ত্রণটি ঝুলিয়ে রেখেছিলেন সুষমা। ৩০ নভেম্বর প্যারিসে মোদি আর নওয়াজের মধ্যে বৈঠকের পরই সুষমার পাকিস্তান সফরের বিষয়টি চূড়ান্ত হয় বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমটি। গত সপ্তাহে সূত্রের উল্লেখ না করে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যমগুলোতে সুষমা স্বরাজের সফরের সম্ভাবনার কথা জানানো হয়েছিল। তবে সেসময় ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো এ ব্যাপারে নীরব ছিল।

সর্বশেষ ২০১২ সালে ভারতের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসএম কৃষ্ণ ইসলামাবাদ সফর করেছিলেন।

এদিকে রবিবার শান্তি ও নিরাপত্তা, সন্ত্রাসবাদ এবং জম্মু-কাশ্মির ইস্যুতে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা পর্যায়ের বৈঠক করে ভারত ও পাকিস্তান। থাইল্যান্ডের ব্যাংককে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয় বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি ও পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম ডন।

তবে তাদের এ গোপন বৈঠক নিয়ে এরইমধ্যে বিতর্কের মুখে পড়েছে মোদি সরকার। কেবল বিরোধীরাই নয়, এ ব্যাপারে ক্ষোভ জানিয়েছেন ক্ষমতাসীন জোটের অন্তর্ভূক্ত দল শিবসেনা। পার্লামেন্টকে না জানিয়ে সরকারের এ ধরনের সিদ্ধান্তকে মৌলিক স্থানচ্যুতি হিসেবে উল্লেখ করেছে কংগ্রেস। তবে সরকারের বিবৃতিতে বলা হয়, ভারত সফররত মরিশাসের প্রেসিডেন্টকে নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ ব্যস্ত থাকায় এ ব্যাপারে জানানো যায়নি।

গত সপ্তাহে প্যারিসে জলবায়ু সম্মেলনের এক ফাঁকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের মধ্যে সমঝোতা হওয়ার প্রেক্ষিতে রবিবারের বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়। দু’দেশের জন্য উপযোগী বিবেচনায় ব্যাংকককে বৈঠকের স্থান হিসেবে বেছে নেওয়া হয়। পরে এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, দুদেশের পররাষ্ট্র সচিবরা বৈঠকে অংশ নিয়েছিলেন। বৈঠকে তাদের মধ্যে শান্তি ও নিরাপত্তা, সন্ত্রাসবাদ, জম্মু-কাশ্মির, লাইন অব কন্ট্রোলসহ বেশ কিছু দ্বিপাক্ষিক ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

সূত্রের বরাতে এনডিটিভি জানায়, চার ঘণ্টা ধরে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরবর্তীতে এ ধরনের বৈঠক আরও হবে। এর আগে মোদি সরকারের শপথ গ্রহণের পর বিভিন্ন সময়ে দুদেশের মধ্যে জম্মু-কাশ্মিরসহ বিভিন্ন বিবাদমান ইস্যুতে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তা ভেস্তে যায়। তবে প্যারিসে নওয়াজ-মোদির বৈঠকের পর নিরাপত্তা উপদেষ্টা পর্যায়ের বৈঠক এবং সুষমা স্বরাজের পাকিস্তান সফরের সিদ্ধান্ত দুদেশের মধ্যে আবার আলোচনার পথ খুলে দিচ্ছে কিনা সেটাই এখন দেখার বিষয়।

সূত্র: দ্য হিন্দু, হিন্দুস্তান টাইমস, এনডিটিভি

/এফইউ/এএ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।