রাত ০৫:৫০ ; রবিবার ;  ১৮ নভেম্বর, ২০১৮  

অংক না পারায় শিশুকে পিটিয়ে আহত করল শিক্ষক

প্রকাশিত:

বরগুনা প্রতিনিধি।।

বরগুনায় তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে বেত দিয়ে পিটিয়ে আহত করেছেন এক কোচিং শিক্ষক। এ ঘটনায় শুক্রবার বিকেলে শিক্ষক জহিরুল ইসলাম বাদলকে আটক করেছে পুলিশ। শিশুটিকে অসুস্থ অবস্থায় বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সে কলেজ রোড এলাকার ক্যালিক্স একাডেমির তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী।

বৃহস্পতিবার রাতে বরগুনা শহরের কলেজ রোড এলাকার বিজয় বৃত্তি কোচিং সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে। আহত ওই ছাত্রীর নাম জাহান মালিহা (৯)।

বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিয়াজ হোসেন এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, শুক্রবার বিকাল ৫টার দিকে পৌর শহরের নাথপট্টি লেক এলাকা থেকে ওই শিক্ষককে আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত জহিরুল ইসলাম বাদল বেত দিয়ে পেটানোর কথা স্বীকার করেছেন।

আহত মালিহার পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে ওই প্রতিষ্ঠানের পরিচালক এবং বরগুনা সদর উপজেলার রোডপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক জহিরুল ইসলাম বাদলকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে শিক্ষা বিভাগ।

হাসপাতালে অসুস্থ শিশু মালিহা কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন,  ‘স্যার আমাকে একটি অংক করতে বলেছিল। অংকটি করতে না পারায় আমাকে বেত দিয়ে পিটিয়েছে। এর আগেও স্যার মেরেছে তবে ভয়ে বাবা-মাকে বলিনি।’

বরগুনা জেনারেল হাসপাতালের মেডিক্যাল অফিসার ডা. মো. জোহানুল ইসলাম জানান, শিশুটির শরীরের বিভিন্ন জায়গায় বেত্রাঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

শিক্ষার্থী মালিহার বাবা মো. জামাল শিকদার অভিযোগ করে বলেন, আমার মেয়ে অংক পারেনি তার জন্য শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ৩৫ থেকে ৪০টি বেত্রাঘাত করা হয়েছে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আব্দুল মজিদ বলেন, এ ঘটনায় শিক্ষক জহিরুল ইসলাম বাদলকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

/আরএ/এনএস/এএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।