রাত ১০:১১ ; সোমবার ;  ২২ জুলাই, ২০১৯  

চেন্নাইয়ে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৬৯, চলছে উদ্ধার অভিযান

প্রকাশিত:

বিদেশ ডেস্ক।।

এক শতাব্দীর মধ্যে সবচেয়ে ভারী বর্ষণে ভারতের তামিলনাড়ুতে বন্যায় এখন পর্যন্ত ২৬৯ জনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। তবে একমাস ধরে চলা প্রবল বর্ষণ বন্ধ হওয়ায় বৃহস্পতিবার থেকে পানিবন্দি মানুষদের উদ্ধারে ব্যাপক অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। অভিযানে দেশটির সেনা, বিমান ও অন্য বাহিনীর সদস্যরা অংশ নিচ্ছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বন্যাকবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, বন্যা ও প্রবল বর্ষণে ত্রিশ লাখ মানুষ আক্রান্ত হয়ে পড়েছে। এসব পানিবন্দি মানুষের নিত্যপ্রয়োজনীয় রসদের অভাব দেখা দিয়েছে। বৃহস্পতিবারের আগ পর্যন্ত বৃষ্টির কারণে উদ্ধার অভিযানও ব্যহত হচ্ছিল। এ পর্যন্ত বিভিন্ন গ্রামের ঘরের ছাদে অবস্থান করা ১৮ হাজার মানুষকে উদ্ধার করে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

নগর কর্তৃপক্ষ রাস্তা মেরামতে বুলডোজার মোতায়েন করেছে। যদিও এখনও বেশ কিছু ব্রিজ পানিতে তলিয়ে আছে। ট্রেন ও বিমান চলাচল এখনও বাতিল রয়েছে। দেশটির নেৌবাহিনী মাছ ধরার নৌকা দিয়ে মানুষদের অন্যত্র সরিয়ে নিচ্ছে। পানিবন্দি মানুষেরা মন্দির, স্কুল ও কমিউনিটি সেন্টারে আশ্রয় নিয়েছে।

এক জ্যেষ্ঠ প্রশাসনিক কর্মকর্তা জানান, উদ্ধারকৃতদের মধ্যে সাতশ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদেরকে আধাসামরিক বাহিনীর সরকারি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র কেএস দাতওয়ালিয়া নয়া দিল্লিতে বলেন, ‘আমরা সবকিছুই করতে চাই। কিন্তু সমস্যা আমাদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে। বিমানবন্দর তলিয়ে গেছে, রেল-যোগাযোগ ভেঙে পড়েছে এবং আবহাওয়াও এখনও অনুকূল নয়।’

এ মুখপাত্র জানান, শিশুদের বাঁচাতে এবং পানিবাহিত রোগের হাত থেকে মানুষকে রক্ষা করতে ফোন নেটওয়ার্ক পুন:স্থাপন, খাবার পানি, ওষুধ ও খাবার সরবরাহ করাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। তামিল নাড়ুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদেরও উদ্ধার কাজে লাগানো হয়েছে।

ইন্ডিয়ান এয়ার ফোর্সের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেছেন, বৃহস্পতিবার সকালে ১২০ জনকে উদ্ধার করে সুপার হারকিউলিস হেলিকপ্টারে করে দিল্লি পাঠানো হয়েছে। আরও বিশ জনকে আরাকোন্নামে পাঠানো হয়েছে।

তামাবারাম এয়ার বেজের এয়ার কমোডোর রিপ্পন গুপ্তা জানিয়েছেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে বিমানবাহিনী পুরো প্রস্তুত আছে। এর মধ্যেই বেশ কিছু ত্রাণ পানিবন্দি মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে, দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি চেন্নাইয়ে বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন। এসময় তিনি বন্যার্তদের ত্রাণের জন্য এক হাজার কোটি রুপি বরাদ্দের ঘোষণা দিয়েছেন।

সংসদে দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছেন, ‘চেন্নাই একটি ছোট দ্বীপে পরিণত হয়েছে। এটা অপ্রত্যাশিত।  দ্রুত উদ্ধার অভিযানেও অনেক সময় লাগে। আমরা স্বাভাবিক পরিস্থিতি ফিরিয়ে আনতে কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছি।’

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের প্রভাবে গত মাস থেকেই ভারতের উপকূলীয় এলাকায় ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে। উল্লেখ্য, ভারতের তামিলনাড়ু ও দক্ষিণ ভারতে প্রতিবছরই জুন থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বন্যার প্রাদুর্ভাব দেখা যায়।

/এএ/এফইউ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।