দুপুর ০২:৫৭ ; বৃহস্পতিবার ;  ১৫ নভেম্বর, ২০১৮  

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের ৯ ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের ৯টি প্রস্তাবসহ মোট ১০টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এ বাবদ মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ২৯২ কোটি টাকা।

বুধবার  সচিবালয়ের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে কমিটির বৈঠকে এ সব প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়।

এতে উপস্থিত ছিলেন কমিটির সদস্য, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিবসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিবগণ। বৈঠক শেষে এ বিষয়ে সাংবাদিকদের অবহিত করেন অতিরিক্ত সচিব মাকসুদুর রহমান পাটোয়ারী।  

তিনি জানান, রাশিয়ার এটমস্ট্রয় এক্সপোর্টের সঙ্গে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ (প্রথম পর্যায়) প্রকল্প সংক্রান্ত তৃতীয় চুক্তির সংযুক্ত শর্ত ক্রমিক-২ বাস্তবায়নের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ বাবদ ব্যয় ধরা হয়েছে ১৯ কোটি ডলার বা প্রায় ১ হাজার ৪৮২ কোটি টাকা।

তিনি আরও জানান, একই প্রকল্পের (প্রথম পর্যায়) আওতায় একই উৎস হতে চতুর্থ চুক্তির মোতাবেক সেবা বা কার্যাদি ক্রয় ও চুক্তি সম্পাদনের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ বাবদ ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে প্রায় ৩৬০ কোটি টাকা।

অনুমোদন দেওয়া অপর প্রস্তাবগুলোর মধ্যে রয়েছে, সুনামগঞ্জ জেলার ধর্মপাশা উপজেলায় ৩২ মেগাওয়াট পিক সোলার পার্ক স্থাপনের দর প্রস্তাব। এটি নির্মাণ করবে এডিসান-পাওয়ার পয়েন্ট ও হাওর বাংলা-কোরিয়া গ্রীণ এনার্জী লিমিটেড। এ প্রকল্পের মেয়াদ ২০ বছর মেয়াদে এ কেন্দ্র হতে প্রতি ইউনিট (কিলোওয়াট ঘন্টা) বিদ্যুৎ কেনার দর নির্ধারণ করা হয়েছে ১৭ সেন্ট।

পাশাপাশি ময়মনসিংহ জেলার গৌরিপুর উপজেলার সুতিয়াখালীর ভাংনামারি মৌজায় ৫০ মেগাওয়াট (এসি) সোলার পার্ক স্থাপনের দর প্রস্তাব। এ প্রকল্পটিও ২০ বছর মেয়াদের। নির্মাণ করবে হিটাট-ডাইট্রোলিক-আইএফডিসি সোলার কনসর্টিয়াম। এ কেন্দ্র হতে প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ কেনার দর ধরা হয়েছে ১৭ সেন্ট।

ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগে পল্লী বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থাপনার ক্ষমতাবর্ধন প্রকল্পের প্যাকেজের পরামর্শক সেবা ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের এনআরইসিএ ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড । বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুৎতায়ন বোর্ডের  আওতাধীন এ প্রকল্পে ব্যয় হবে ৩৭ কোটি ৭০ লাখ টাকা।

একই সংস্থার আওতাধীন ‘পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণের মাধ্যমে ১৮ লাখ গ্রাহক সংযোগ’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় সিঙ্গেল ফেজ ইলেক্ট্রোনিক মিটারের সংশোধিত ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্রকল্পটি ৫১ কোটি ৩৭ লাখ টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়ন করবে মেসার্স টেকনো ইলেকট্রিসিটি।

পাশাপাশি অপর তিনটি প্রকল্পের পরামর্শক সেবা ক্রয়ের প্রস্তাবও অনুমোদন হয়েছে। এটি ৩৩ কোটি ৭২ লাখ টাকা ব্যয়ে বাস্তবায় করবে বেলজিয়াম ও যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক দুটি প্রতিষ্ঠান।

এ ছাড়া, এ সংস্থার আওতাধীন ট্রাসফরমারসহ বিভিন্ন পণ্য সেবা ক্রয়ে আরও তিনটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ বাবদ ব্যয় ধরা হয়েছে ১০৮ কোটি ৯০ লাখ টাকা।

‘মহেশখালী, আনোয়ারা গ্যাস সঞ্চালনে পাইপলাইন নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্পের যন্ত্রাংশ ক্রয় এবং ৮৯ দশমিক ৩৬৫ (নদী অতিক্রম ব্যতীত) কিলোমিটার পাইপলাইন নির্মাণ প্রস্তাব। গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানি লিমিটেড (জিটিসিএল) কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন এ প্রকল্পে মোট ব্যয় হবে ১৬৩ কোটি ৪৬ লাখ টাকা।

আজকের বৈঠকে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত ব্যতীত অনুমোদন পাওয়া প্রকল্পটি হলো মংলা সমুদ্র বন্দরে ৫০ হাজার মেট্রিকটন ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন সাইলো নির্মাণ। খাদ্য অধিদফতর পূর্ব নির্ধারিত ব্যয়ে তুলনায় ৫৫ কোটি ৮২ লাখ টাকা অতিরিক্ত ব্যয়ে ৪৪৩ কোটি ৯৯ লাখ টাকায় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে।

/এফএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।