রাত ১০:২৮ ; শুক্রবার ;  ১৮ অক্টোবর, ২০১৯  

মুন্সীগঞ্জে গড়ে তোলা হবে প্লাস্টিক শিল্পনগরী

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট॥

ঢাকার অদূরে মুন্সীগঞ্জের ধলেশ্বরী নদীর কাছে ঢাকা-মাওয়া-খুলনা মহাসড়কের পাশে সিরাজদিখান উপজেলায় গড়ে তোলা হবে প্লাস্টিক শিল্পনগরী। বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনের  (বিসিক) তত্ত্বাবধানে গড়ে ওঠবে এই শিল্প নগরী। এ সংক্রান্ত একটি প্রকল্প অনুমোদন করেছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এটি বাস্তবায়নে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৩৩ কোটি টাকা।

প্রস্তাবে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালের জুনের মধ্যে প্লাস্টিক শিল্পনগরী তৈরির লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে। এ শিল্পনগরীটি গড়ে ওঠলে পুরান ঢাকার আশপাশে অপরিকল্পিত ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে গড়ে ওঠা প্লাস্টিক শিল্প-কারাখানাগুলোকে পরিবেশসম্মত উপযোগী স্থানে স্থানান্তর করা সম্ভব হবে। সেই সঙ্গে মানসম্মত প্লাস্টিকদ্রব্য উৎপাদনের সুযোগ সৃষ্টি এবং জিডিপিতে শিল্প খাতের অবদান বাড়বে। পাশাপাশি কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে বলেও আশা প্রকাশ করছেন সংশ্লিষ্টরা।

প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে শিল্পনগরীতে ৩৭০টি শিল্প প্লট স্থাপিত হবে। এর মধ্যে ১০ শতাংশ মহিলা উদ্যোক্তাদের জন্য সংরক্ষণ করা হবে। ৩৭০টি প্লটে কম-বেশি ৩৬০টি শিল্প ইউনিট স্থাপিত হবে। এসব শিল্প ইউনিটে ১৮ হাজার মানুষের সরাসরি কর্মসংস্থান হবে, যা দারিদ্র্য হ্রাসে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরে বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে প্লাস্টিক শিল্পনগরীসহ ৭ প্রকল্প অনুমোদন  দেওয়া হয়েছে। এগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ৩৭ কোটি টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিলের ২ হাজার ১১ কোটি ৫৪ লাখ টাকা এবং সংস্থার নিজস্ব তহবিল থেকে ২৫ কোটি ৪৬ লাখ টাকা।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, পরিকল্পনা সচিব শফিকুল আজম, পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব কানিজ ফাতেমা।

অনুমোদিত প্রকল্পগুলো হচ্ছে- ৭৯৯ কোটি ৯৮ লাখ টাকা ব্যয়ে পল্লী অঞ্চলে পানি সরবরাহ প্রকল্প, ৮৪ কোটি ৮৮ লাখ টাকা ব্যয়ে ডেলিভারি সেবা দ্রুতকরণ প্রকল্প, ৪৩ কোটি ৯৩ লাখ টাকা ব্যয়ে এসবি, সিআইডি ভবনের ৭ম থেকে ১১তম তলা পর্যন্ত ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ প্রকল্প, ৬১৫ কোটি ৫৩ লাখ টাকা ব্যয়ে মানিকগঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ ও ২৫০ শয্যর হাসপাতাল স্থাপন শীর্ষক প্রকল্প, ২৯৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা ব্যয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প (দ্বিতীয় সংশোধিত), ৬২ কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে ইনট্রিগ্রাট্রেড ম্যানেজমেন্ট অব রিসোর্স ফর প্রভার্টি অ্যালিভিয়েশন থ্রো কমপ্রিহেনসিভ টেকনোলজি প্রকল্প।

শিল্প মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, প্লাস্টিক শিল্প দেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ শিল্প খাত হওয়া সত্ত্বেও এখন পর্যন্ত এ শিল্পের কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন ঘটেনি। পরিকল্পিত উন্নয়নের মাধ্যমে মধ্যম আয়ের দেশে যেতে হলে সম্ভাবনাময় এ শিল্পের অবদান বহুগুণ বাড়ানো সম্ভব। বর্তমানে দেশে প্রায় ৫ হাজার ৩০টি প্লাস্টিক শিল্প-কারখানা রয়েছে, যার অধিকাংশই বেসরকারি মালিকানাধীন। এর মধ্যে ৫০টি বড়, ১ হাজার ৪৮০টি মাঝারি এবং প্রায় ৩ হাজার ৩০টি ক্ষুদ্র প্লাস্টিক কারখানা রয়েছে। এসব কারখানার মধ্যে ৮০ শতাংশই ঢাকাকেন্দ্রিক এবং ক্ষুদ্র কারখানার ৯০ শতাংশই পুরান ঢাকার বিভিন্ন স্থানে অবস্থিত।

/এসআই / এএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।