দুপুর ০১:৩৩ ; বৃহস্পতিবার ;  ১৯ জুলাই, ২০১৮  

ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের মাঝে ল্যাপটপ বিতরণ

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে দুই হাজার ল্যাপটপ বিতরণ করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি’র) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আবদুল মান্নান শনিবার শিক্ষার্থীদের হাতে এসব ল্যাপটপ তুলে দেন।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র স্থায়ী ক্যাম্পাস আশুলিয়ায় শিক্ষার্থীদেরকে যুগোপযোগী করে গড়ে তোলা এবং দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ‘একজন ছাত্র একটি ল্যাপটপ’ প্রকল্পের নিয়মিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে এ ল্যাপটপ বিতরণ কার্যক্রমের উদ্যোগ নেয় ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ।

প্রতিযোগিতামূলক চাকরির বাজারে শিক্ষার্থীদের দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে এ প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়।

ল্যাপটপ প্রদানের পূর্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও এমিরেটাস অধাপক ড. এম লুৎফর রহমান একাডেমিক ও শিক্ষা কার্যক্রমে ল্যাপটপের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করার বিষয়ে শিক্ষার্থীদের শপথবাক্য পাঠ করান।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ই্উজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান বলেন, ‘প্রযুক্তি আজ শিক্ষা গ্রহণ ও প্রদানের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে ল্যাপটপ বিতরণের উদ্যোগ একটি সাহসী ও সময়োপযোগী পদক্ষেপ।’

শিক্ষার্থীদেরকে ল্যাপটপের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়ে ই্উজিসি চেয়ারম্যান বলেন, ‘বর্তমান সরকারের নির্বাচনী ইশতেহারের অন্যতম ঘোষণা ছিল, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলা। সে লক্ষ্য পূরণে সরকার সফল হয়েছে। এ ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে ভবিষ্যৎ প্রজন্মেকে প্রযুক্তি জ্ঞানে দক্ষ করতে হবে।’

উল্লেখ্য, সামার-২০১০ সেমিস্টার থেকে ‘ওয়ান স্টুডেন্ট: ওয়ান ল্যাপটপ’ কর্মসূচির আওতায় ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হওয়া সব শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিনামূল্যে ল্যপটপ প্রদান করে আসছে। এর ধারাবাহিকতায় শনিবার স্প্রিং ২০১৪ এবং সামার ২০১৪ সেমিস্টারে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের হাতে এ ল্যাপটপ তুলে দেওয়া হয়। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট ১২ হাজার শিক্ষার্থীকে বিনামূল্যে ল্যাপটপ প্রদান করা হলো।

/এসআইএস/এমপি/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।