রাত ০৫:০৫ ; সোমবার ;  ১৮ নভেম্বর, ২০১৯  

মুন্সীগঞ্জে প্রার্থিতা নিয়ে ‘দ্বন্দ্ব’ আওয়ামী লীগে

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

তানজিল হাসান, মুন্সীগঞ্জ।।

মুন্সীগঞ্জে পৌরসভার নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত আওয়ামী লীগ। দলটির তিন প্রার্থী এবার পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চান। এ নিয়ে দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে। দুই প্রার্থী বাধার মুখে দলীয় প্রার্থিতার আবেদন জমা দিতে না পারার অভিযোগ এনেছেন।  

জানা গেছে, মেয়র পদে এবারও প্রার্থী হতে চান জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি,বঙ্গবন্ধুর চিফ সিকিউরিটি গার্ড মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের ছেলে হাজি মো. ফয়সাল বিপ্লব। তিনি মুন্সীগঞ্জ আওয়ামী লীগের একজন সদস্য এবং কেন্দ্রীয় উপকমিটির সহ-সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন বলে শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান জানান।

এছাড়া মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সাবেক ছাত্রনেতা মাহতাবউদ্দিন কল্লোল ও সাবেক বাকশাল নেতা, ‘আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান’ জেলা ইউনিটের সভাপতি রেজাউল ইসলাম সংগ্রাম।

আজ  (২৮ নভেম্বর) দুপুর আড়াইটার দিকে এক সংবাদ সম্মেলনে রেজাউল ইসলাম সংগ্রাম জানান, আমাকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমান ফোনে জানিয়েছিলেন দলের প্রার্থিতা চেয়ে আবেদনপত্র পাঠাতে। সেই মোতাবেক আমি আবেদনপত্র পাঠাতে যাই।কিন্তু আবেদনপত্র পাঠাতে গেলে বাধার সম্মুখীন হই।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন, তারা চায় মুন্সীগঞ্জের আওয়ামী লীগের রাজনীতিকে একটি পরিবারে সীমাবদ্ধ রাখতে। তাই দলীয় প্রার্থিতা চেয়ে আবেদন করতে আমাকে বাধা দেওয়া হয়। এর প্রতিবাদে আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে নির্বাচন করব।

এদিকে আওয়ামী লীগের অপর মেয়র প্রার্থী মাহতাব উদ্দিন কল্লোলও দলীয় প্রার্থিতা চেয়ে আবেদন করতে গেলে ‘বাধা দেওয়া হয়েছে’ বলে অভিযোগ করেন।

তিনি বলেন, আবেদনপত্র নিয়ে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে জেলা সভাপতির কাছে যাওয়ার সময় কিছু লোক আমাকে বাধা দেয়। আবেদনপত্র জমা না দিয়ে আমি ফিরে আসি। পরে মোবাইল এসএমএসে আমি জেলা নেতাদের বরাবর আবেদন করি।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জামাল হোসেন বলেন, মেয়র পদে পৌর নির্বাচন করতে চেয়ে আমরা শুধু একজনেরই আবেদন পেয়েছি।তিনি বাধা দেওয়ার বিষয়টি এড়িয়ে যান।

শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান বলেন, মো. ফয়সাল ছাড়া আর কোনও প্রার্থী পাওয়া যায়নি।

কাউকে বাধা দেওয়া হয়নি বলেও তিনি দাবি করেন।

/এসএস/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।