দুপুর ০২:২৯ ; মঙ্গলবার ;  ১২ নভেম্বর, ২০১৯  

দেশে প্রচুর বিনিয়োগ প্রয়োজন: পরিকল্পনামন্ত্রী

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট ॥

দেশে বিপুল পরিমাণ বিনিয়োগ প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেন, বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষ আমাদের সম্পদ। আমাদের কর্মক্ষম মানুষের হার বাড়ানোর কাজ চলছে। আগামী ২০৩৭ সাল পর্যন্ত এই কাজ অব্যাহত থাকবে। বৃহস্পতিবার  রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে চায়না ঝেজিয়াং-বাংলাদেশ ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড ট্রেড কনফারেন্সে তিনি এ সব কথা বলেন।

পরিকল্পনামন্ত্রীর মতে, বর্তমানে বাংলাদেশের অর্থনীতির যে অবস্থা তাতে বিদেশি ঋণের চেয়ে বিনিয়োগই বেশি প্রয়োজন।

ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই ও চায়না কাউন্সিল ফর প্রমোশন অব ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড (সিসিপিআইটি) যৌথভাবে এ সম্মেলনের আয়োজন করেছে।

সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বিদ্যুৎ,  জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, এফবিসিসিআই-এর সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ, বিনিয়োগ বোর্ডের নির্বাহী চেয়ারম্যান এসএ সামাদ এবং ঝেজিয়াং প্রদেশের ভাইস মিনিস্টার চেন ইয়ারহুয়া বক্তব্য দেন।

বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য সরকারের সুযোগ-সুবিধা তুলে ধরে তিনি বলেন, সরকার আপনাদের ব্যবসার জন্য যে জমি দেবে, তা আপনাদের হয়ে যাবে। একইসঙ্গে বিদেশি বিনিয়োগের জন্য নানা ধরনের সুযোগ সৃষ্টি করে বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ তৈরি করা হচ্ছে। এসব সুযোগকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশে বিনিয়োগ করুন।

সম্মেলনে বিনিয়োগ বোর্ডের চেয়ারম্যান সামাদ বলেন, বর্তমানে মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) মাত্র ২৪ শতাংশ বিনিয়োগ হচ্ছে। এটাকে ৩২ শতাংশে উন্নীত করা আমাদের লক্ষ্য। বাংলাদেশে কৃষি, খাদ্য, টেক্সটাইল ও চামড়াসহ অনেক খাতে বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে বলে জানান তিনি।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উৎপাদন  সক্ষমতা ২৪ হাজার মেগাওয়াটে উন্নীত করার টার্গেট নিয়ে কাজ চলছে। এই খাতে চীনাদের বিনিয়োগের আহবান জানান।

/এসআই/এমএনএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।