সকাল ০৮:৫৪ ; বৃহস্পতিবার ;  ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯  

পঞ্চগড় থেকে ভারতে গেলেন আরও ১০৫ জন

প্রকাশিত:

পঞ্চগড় প্রতিনিধি।।

পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার বিলুপ্ত দহলা খাগড়াবাড়ি ও বোদা উপজেলার দইখাতা ছিটমহল থেকে চতুর্থ দফায় ভারতে গেলেন ২১ পরিবারের ১০৫ জন।

বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৮টায় দেবীগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ মাঠে তাদের ভারত যাওয়ার সব কার্যক্রম শেষ হয়।প্রয়োজনীয় কার্যক্রম শেষে পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ গোলাম আযম ভারতীয় হাই কমিশনের ফার্স্ট সেক্রেটারি রমা কান্ত গুপ্তের হাতে কাগজপত্র তুলে দেন।

এর আগে প্রথম দফায় জেলার সদর উপজেলার গাড়াতি, বোদা উপজেলার নাটকটোকা, বেহুলাডাঙ্গা, কাজলদিঘী ও নাজিরগঞ্জ ছিটমহলের ১৪টি পরিবারের ৪৮ জন, দ্বিতীয় দফায় দেবীগঞ্জ উপজেলার বিলুপ্ত কোটভাজনী ও বালাপাড়া ছিটমহলের ২৮টি পরিবারের ১৪৭ জন এবং তৃতীয় দফায় বিলুপ্ত দহলা খাগড়াবাড়ি ছিটমহলের ৩০টি পরিবারের ১৫২ জন স্থায়ীভাবে বাংলাদেশ থেকে ভারতে গেছেন। অবশিষ্ট ৩৯ জনের মধ্যে ৩৪ যাবেন ৩০ নভেম্বর। বাকি পাঁচজন বাংলাদেশই থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

দেবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শফিকুল ইসলাম ৩টি বাস ও ৫টি ট্রাকে ভারতীয় নাগরিক ও মালামাল নিয়ে নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার চিলাহাটি ডাঙ্গাপাড়া সীমান্তে রওনা দেন। চিলাহাটির ডাঙ্গাপাড়া সীমান্তে আব্দুর রউফ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষে দুপুরের আগেই সাবেক ছিটমহলের ওই অধিবাসীরা হলদিবাড়ী সীমান্ত দিয়ে ভারতে যাবেন।

উল্লেখ্য, পঞ্চগড়ের বিলুপ্ত ৩৬টি ছিটমহলের ৯৮ পরিবারের ৪৮৯ জন নাগরিকের স্থায়ীভাবে ভারতে যাওয়ার কথা রয়েছে।

/এনএস/এফএস/

 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।