রাত ০৯:২৭ ; বৃহস্পতিবার ;  ২০ জুন, ২০১৯  

পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগ

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

রংপুর প্রতিনিধি।।

স্বামীর পরকীয়ার বাধা দেওয়ায় স্ত্রী জুলেখা বেগমকে অমানুষিক নির্যাতনের অভিযোগ ওঠেছে এক পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি ও লালমনিরহাট জেলা পুলিশ সুপারকে লিখিত অভিযোগ করেও কোনও বিচার পাচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন নির্যাতিতা গৃহবধূ জুলেখা বেগম।

সোমবার সকালে রংপুর নগরীর একটি হেটেলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করা হয়।

নির্যাতনের অভিযোগ ওঠা ওই পুলিশ কর্মকর্তার নাম আরজু মো. আনজুমা সাজ্জাদ হোসেন। তিনি লালমনিরহাটের কালিগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত)। তার বাড়ি রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার বালুয়া মাসিমপুর ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর গ্রামে।

লিখিত অভিযোগে জুলেখা বেগম জানান,  ১৯৯৭ সালে ওই এলাকার জহের মাস্টারের ছেলে আরজু মো. সাজ্জাদ হোসেনের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের সময় তাকে যৌতুক হিসেবে ৫ লাখ টাকা দেওয়া হয়। বিয়ের কিছুদিন পর জানতে পারেন তার পুলিশ কর্মকর্তা স্বামী পরকীয়া ছাড়াও বিভিন্ন অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকে। প্রতিবাদ করলেই অমানুষিক নির্যাতন করা হতো। তার পরেও একমাত্র সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে তার সঙ্গে ঘর-সংসার করে আসছিলেন। অসামাজিক কার্যকলাপ থেকে তাকে কয়েকবার বিরত রাখার চেষ্টা করেও লাভ হয়নি।

জুলেখা আরও জানান, সম্প্রতি বাড়িতে এক মহিলার সঙ্গে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত থাকার সময় হাতেনাতে ধরে ফেললে তাকে অমানুষিক নির্যাতন করে বাসা থেকে বের করে দেন ওই পুলিশ কর্মকর্তা। এ ঘটনায় লালমনিরহাট জেলা পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ করেও কোনও প্রতিকার পাননি জুলেখা বেগম। পরে রংপুর রেঞ্জের ডিআইজির কাছে অভিযোগ করার পর থেকে তাকে হত্যার হুমকি দিচ্ছেন স্বামী সাজ্জাদ।

এ ব্যাপারে পুলিশের আইজির হস্তক্ষেপ কামনা করে স্বামীর বিচার দাবি করেন স্ত্রী জুলেখা বেগম।

এ ব্যাপারে ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে কয়েকবার ফোন করলেও তিনি তা ধরেননি।

/আরএ/এএ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।