রাত ০৫:৫১ ; শুক্রবার ;  ১৯ জানুয়ারি, ২০১৮  

ধারাবাহিকভাবেই বিশ্ব রাজনীতির পটপরিবর্তন ঘটছে

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

এহতেশাম ইমাম।।

বিশ্ব রাজনীতির পটপরিবর্তনকে ধারাবাহিক প্রক্রিয়া বলে মনে করেন সমকালীন বিশ্বের চিন্তাবিদ, সাহিত্যিক ও সমাজবিশ্লেষকরা। তাদের মতে, ওয়ান ইলেভেন থেকে গত সপ্তাহের প্যারিস হামলার ঘটনাগুলো পর্যালোচনা করলে দেখা যাবে বিশ্ব রাজনীতির পটপরিবর্তন হচ্ছে প্রতিনিয়ত। যাতে স্থান করে নিয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন শক্তিধর দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন পদক্ষেপ থেকে শুরু করে ধর্মীয়, সাংস্কৃতিক বিভিন্ন ভাবধারা। বৃহস্পতিবার বাংলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত ঢাকা লিট ফ্যাস্টিভ্যালের প্রথম সেশনে অংশ নিয়ে তারা এমন মন্তব্য করেন।

উৎসব আয়োজনের পরিচালক কাজী আনিস আহমেদের সঞ্চালনায় সেশনে আলোচক হিসেবে অংশ নেন সাংবাদিক জন স্নো, নারীবাদী সংগঠক জুড কেলি এবং ভারতীয় শিক্ষাবিদ রামচন্দ্র গুহ। এ সময় বক্তাদের আলোচনায় উঠে আসে মধ্যপ্রাচ্যের চলমান সহিংসতা থেকে শুরু করে ভারতের সাম্প্রতিক গো-রাজনীতিসহ রাজনৈতিক বিভিন্ন পটপরিবর্তনের বিষয়ও।

কাজী আনিস আহমেদের প্রশ্নের উত্তরে জুড কেলি তুলে ধরেন, ভূ-রাজনীতির অংশ হিসেবে মনুষত্বের অধিকার থেকে নারীরা কিভাবে সবসময়ই নির্যাতিত-বঞ্চিত হয়ে আসছে। এ সময় তিনি যোগ করেন, বিশ্ব-প্রযুক্তি থেকে শুরু করে বিভিন্ন ক্ষেত্রে এগিয়ে গেলেও, এখনও নারীকে পণ্য হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

বিশ্বব্যাপী ঘটে যাওয়া সাম্প্রতিক বিভিন্ন ঘটনা নিয়ে সার্বিক পর্যালোচনা তুলে ধরেন ভারতীয় শিক্ষাবিদ রামচন্দ্র গুহ। এ সময় সৌদি আরব থেকে শুরু করে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন দেশের প্রতি বিভিন্ন সময় স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়াদির ব্যাখ্যা তুলে ধরেন তিনি। এক্ষেত্রে ধর্মীয় মৌলবাদের উত্থানের পেছনে দারিদ্র্যকে মূল কারণ হিসেবে দায়ী করেন। এ সময়  দৃশ্যমান রাজনীতির পেছনে বিভিন্ন সময় শক্তিশালী দেশগুলোর স্বার্থবাদী পরিকল্পনাকে দায়ী করেন তিনি।

তবে, যুদ্ধবিধ্বস্ত বিভিন্ন দেশে সরাসরি সাংবাদিকতার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ব্রিটিশ সাংবাদিক জন স্নো তুলে ধরেন বিশেষ কয়েকটি দিক। যার মধ্যে স্থান করে নিয়েছে মহাদেশভিত্তিক সেনাশাসন প্রবণতা থেকে শুরু করে গণতন্ত্রের নামে নিজেদের সিদ্ধান্ত চালিয়ে দেওয়ার প্রবণতা।

/এমএনএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।