দুপুর ০৩:৪৮ ; শুক্রবার ;  ১৮ অক্টোবর, ২০১৯  

মায়ের পরিকল্পনায় ছেলে খুন!

প্রকাশিত:

চাঁদপুর প্রতিনিধি।।

চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলায় এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ১৯ নভেম্বর বৃহস্পতিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম আরিফ হোসেন (৩০)। তিনি উপজেলার দক্ষিণ আলগী ইউনিয়নের প্রবাসী মিজানুর রহমান খানের ছেলে। নিহতের স্ত্রী এ হত্যার জন্য তার শাশুড়িকে দায়ী করেন। 

পুলিশ ও স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে, গভীর রাতে ঘরে ঢুকে কে বা কারা আরিফকে কুপিয়ে পালিয়ে যায়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় চাঁদপুর সদর হাসপাতাল থেকে চিকিৎসকের পরামর্শে ঢাকায় নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ রক্তাক্ত কাপড়, একটি হকিস্টিক, দা উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় আরিফের মা খুকি বেগম ও তার বোনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের খবর পেয়ে চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আশরাফুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

নিহতের মা বলেন, রাতে কে বা কারা ঘরে ঢুকে আমাকে ছুরি দেখিয়ে কানের দুল দাবি করে। না দিতে চাইলে আমার মাথায় আঘাত করে ছেলের রুমে চলে যায়। পরে সেখানে গিয়ে দেখি আমার ছেলে রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে পড়ে আছে। তিনি বলেন, তিনজন মানুষ মুখে কাপড় দিয়ে ঘরের লাইট বন্ধ করে এবং বাইরের দরজায় শেকল লাগিয়ে আমার ছেলেকে মেরে চলে যায়। 

স্থানীয়রা জানান, আরিফের মা ভোর চারটার দিকে ডাকাত, ডাকাত বলে চিৎকার করলে আমরা এসে আরিফকে ঘরে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখতে পাই। তবে ডাকাত বা ডাকাতির কোনও কিছুই দেখতে পাইনি।

তারা বলেন, পারিবারিক কলহের কারণে মা এবং ছেলের মধ্যে দীর্ঘদিন বিভিন্ন বিষয়ে মনোমালিন্য ছিল। মা তার ছেলেকে এক বছর আগে বিভিন্ন অপবাদে পুলিশের কাছে তুলে দিয়েছিলেন।

নিহত আরিফের স্ত্রী আসমা বেগম বলেন, আরিফকে ভালোবেসে বিয়ে করেছি বলে আমার শাশুড়ি আমাকে হুমকি দিয়ে বলে ‘১৫ দিনের মধ্যে তোর জামাইকে মেরে তোকে বিধবা করব’।

আসমা আরও বলেন, শাশুড়ী আমার স্বামীকে মারার জন্য তিনবার সন্ত্রাসী দিয়ে হামলা চালান। শাশুড়ি ঢাকা থেকে আসার পর আমাকে বলেন, ‘তোর বাপের বাড়ি থেকে বেরিয়ে আয়’। তার কথায় বাবার বাড়িতে গেলে এ ঘটনা ঘটে।

চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আশরাফুজ্জামান বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য বের করতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে তার মা-বোনকে। তারা এটিকে ডাকাতির ঘটনা বললেও তেমন আলামত পাওয়া যায়নি।

হাইমচর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ওয়ালি উল্লাহ জানান, মৃত্যুর ঘটনাটি রহস্যজনক হলেও ডাকাতির আলামত পাইনি। ঘটনার ক্লু উদ্ধার করে প্রকৃত অপরাধীকে আইনের আওতায় আনা হবে।

/এসএস/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।