বিকাল ০৪:২৩ ; বৃহস্পতিবার ;  ২১ নভেম্বর, ২০১৯  

বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার সম্মেলনে ৩ সুবিধা চাইবে বাংলাদেশ

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় (ডব্লিউটিও) স্বল্পোন্নত দেশগুলোর দশম মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে তিনটি সুবিধা চাইবে বাংলাদেশ। এগুলোর মধ্যে রয়েছে কোটা ও শুল্ক মুক্ত সুবিধা, রুলস অব অরিজিন ও সার্ভিস ওয়েভার। এগুলো আগের বৈঠকগুলোর সিদ্ধান্ত হলেও বাস্তবায়ন হয়নি।

সচিবালয়ে বৃহস্পতিবার ডব্লিউটিওর আওতাভুক্ত স্বল্পোন্নত দেশগুলোর মিনিস্ট্রিয়াল কনফারেন্সের প্রস্তুতি বিষয়ক সভা শেষে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী স্বল্পোন্নত দেশগুলোর জন্য শুল্ক ও কোটা মুক্ত সুবিধা প্রদানের সুপারিশ ছিল। কিন্তু বেশিরভাগ দেশ এ সুবিধা বাংলাদেশকে দেয়নি।

তিনি বলেন, স্বল্প উন্নত দেশের জনগণ উন্নত দেশে কাজ করতে গেলে বেশ কিছু শর্ত থাকে। শর্তগুলো যাতে শিথিল করা যায় সেজন্য (সার্ভিস ওয়েভার) প্রস্তাব দেওয়া হবে।

একই সঙ্গে অগ্রাধিকারমূলক বাজার সুবিধা (জেনারেলাইজড সিস্টেম অব প্রেফারেন্সেস-জিএসপি) প্রাপ্তির ক্ষেত্রে রুলস অব অরিজিনের শর্ত শিথিল করার দাবি জানানো হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশকে অনেক দেশ এখন হিংসা করে। কারণ, অনেক দেশ ভেবেছিল, স্বাধীনতার পরে দেশটির অবস্থা ভালো থাকবে না। কিন্তু আমাদের দেশ উন্নতির পথে ধাবিত হচ্ছে। আগে আমরা যে দেশের সঙ্গে ছিলাম, সেই পাকিস্তানের চেয়ে অনেক দিক থেকে ভালো অবস্থানে আছি। আমাদের গড় আয়ু বেশি, মা ও শিশু মৃত্যৃর হার কমেছে। রিজার্ভ ভালো, রেমিটেন্স ভালো।

তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, অনেকেই মনে করেছিলেন শুল্ক ও কোট মুক্ত সুবিধা উঠে গেলে আমাদের রফতানিতে ধস নামবে। বাস্তবে রফতানি বেড়েছে। আগের সময়ের চেয়ে ২১ শতাংশ রফতানি প্রবৃদ্ধি হয়েছে। বিশেষ করে আমেরিকায় আগের তুলনায় ১৭ দশমিক ২৯ শতাংশ পণ্য রফতানি বেড়েছে। এটা ভালো লক্ষণ। তবে ইউরোর দাম পড়ে যাওয়ায় বাংলাদেশের ৩ বিলিয়ন ডলার রফতানি কম হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ ১০৭টি দেশে ওষুধ রফতানি করছে। ২০৩৩ সাল পর্যন্ত ওষুধ শিল্পে মেধাস্বত্বে ছাড় পেয়েছে বাংলাদেশসহ স্বল্পোন্নত সদস্য দেশগুলো (এলডিসি)।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৫ ডিসেম্বর থেকে ১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে অনুষ্ঠিতব্য বৈঠকে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমদের নেতৃত্বে ১৯ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল অংশ নেবেন।

প্রতিনিধিদলে আরও থাকবেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত সচিব ও ডবিøউটিও শাখার মহাপরিচালক অমিতাভ চক্রবর্তী, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান, রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) ভাইস চেয়ারম্যান শুভাশীষ বোস, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব হাফিজুর রহমান, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ বক্সী, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্তর্জাতিক সংস্থার মহাপরিচালক রিয়াজ হামিদুল্লাহ, নাইরোবিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার মেজর জেনারেল আবুল কালাম মোহম্মদ হুমায়ুন কবীর, সুইজারল্যান্ডে নিযুক্ত বাংলাদেশর রাষ্ট্রদূত শামীম আহমেদ, দূতাবাসের ইকনোমিক মিনিস্টার সুপ্রিয় কুমার কুন্ডু, জেনেভায় বাংলাদেশ মিশনের মিনিস্টার মোস্তফা আবিদ খান, জাতীয় সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন, এফবিসিসিআইর সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ, বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, বিকেএমইএ ভাইস প্রেসিডেন্ট আসলাম সানী, এমসিসিআই সভাপতি সৈয়দ নাসিম মঞ্জুর, ডিসিসিআই সভাপতি হোসেন খালেদ এবং আইসসিআই সভাপতি মাহবুবুর রহমান।

/এসআই/এফএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।