বিকাল ০৪:৩৮ ; শুক্রবার ;  ২২ নভেম্বর, ২০১৯  

উন্নয়ন সহযোগীদের সহায়তা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট॥

উন্নয়ন সহযোগীদের কাছে সহায়তা চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, উন্নয়ন সহযোগীদের কাছ থেকে প্রতিশ্রুত সহায়তা পেলে কঠোর পরিশ্রম ও উদ্যমের মাধ্যমে বাংলাদেশ ভবিষ্যতে উন্নয়নের এক বিস্ময় হিসেবে আবির্ভূত হবে। রবিবার  বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ উন্নয়ন ফোরাম-২০১৫-এর উদ্বোধনকালে তিনি এসব একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, অমিত সম্ভাবনার দেশ বাংলাদেশ। সরকার দেশের সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করে জনগণের সার্বিক উন্নয়নে বদ্ধপরিকর। এজন্য বর্তমান সরকার টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা পূরণে সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা ও কর্মসূচি নিয়ে কাজ করছে। আমাদের এ অগ্রযাত্রায় আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সহযোগীদের সঙ্গে  পেলে আমরা আনন্দিত হব।

শেখ হাসিনা বলেন, অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নের মাধ্যমে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উচ্চ মধ্যম আয়ের দেশ ও ২০৪১ সালে উন্নত সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি আন্তরিকভাবে বিশ্বাস করি, বাংলাদেশ উন্নয়ন ফোরাম বা বিডিএফ ২০১৫ আগামীদিনের দারিদ্র্যমুক্ত, ক্ষুধামুক্ত সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ বিনির্মাণের জন্য যৌথ কর্মপন্থা নির্ধারণ ও প্রয়োজনীয় সুপারিশ প্রণয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। তিনি বলেন, এসডিজি বাস্তবায়নে আরও সম্পদের প্রয়োজন। এজন্য আরও সরাসরি বৈদেশিক বিনিয়োগ (এফডিআই) প্রয়োজন। এ প্রেক্ষাপটে বর্তমান সরকার প্রত্যক্ষ বৈদেশিক বিনিয়োগের জন্য দেশের বিভিন্ন এলাকায় ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে, অন্যান্য অবকাঠামো উন্নয়নে কাজ করছে এবং অধিকতর বৈদেশিক বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টিতে প্রয়োজনীয় সংস্কার কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, এশিয়ান ইনফ্রাস্ট্রাকচার ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংকের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট জিং লিকুন, এশিয়ান ডেভলপমেন্ট ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট ওয়েনকেই ঝাং, জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ডেপুটি ডিরেক্টর জেনারেল কিংগো টয়োডা প্রমুখ।

এতে ইউএসএইড বাংলাদেশের প্রধান স্থানীয় কন্সালটেটিভ গ্রুপের (এলসিজি) কো-চেয়ার জানিনা জারুজেলস্কি এবং ইআরডি’র সিনিয়র সচিব মেজবাহ উদ্দিন স্বাগত বক্তৃতা দেন।

উল্লেখ্য, দুদিনের এই উন্নয়ন ফোরামের মূলত ৭ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার লক্ষ্য ও কৌশল নিয়ে আলোচনা হবে। বৈঠকে বাংলাদেশ এই পরিকল্পনার লক্ষ্যসমূহ বাস্তবায়নে উন্নয়ন সহযোগী, সুশীল সমাজের সংগঠন, বুদ্ধিজীবী মহল ও বেসরকারি খাতে সহায়তা চাইবে। সূত্র : বাসস

/এসআই/ এমএনএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।