দুপুর ০১:২৪ ; রবিবার ;  ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৯  

‘খালেদা জিয়া দেশে ফিরে আসবেন না’

প্রকাশিত:

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি।।

‘খালেদা জিয়া চিকিৎসার নামে বিদেশে গিয়েছেন। তিনি দেশে আর ফিরে আসবেন কিনা সন্দেহ আছে। বাংলাদেশের জনগণ খালেদা জিয়ার খুনের রাজনীতি প্রত্যাখ্যান করেছে। দেশে ফিরে পৌর নির্বাচনের প্রচারণায় নামলে দেশের মানুষ তাকে প্রতিহত করবে। লুটপাট করা অর্থ নিয়ে তিনি তাই লন্ডনেই থাকবেন।’

মঙ্গলবার শেখ ফজলুল হক মনি স্মৃতি অডিটোরিয়ামে উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য এ কথা বলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও গোপালগঞ্জ-২ আসনের এমপি শেখ ফজলুল করিম সেলিম।

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মমলাগুলোর বিচার শুরু হয়েছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘এতিমের টাকা মেরে খাওয়া মামলায় তার সাজা হবে। নাইকো মামলা সচল হয়েছে। শেষ বয়সে জেল খাটার ভয়ে তিনি দেশে ফিরবেন কিনা তা নিয়ে সন্দেহ দেখা দিয়েছে।’

বিএনপির সঙ্গে কোনও আলোচনার সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়ে শেখ সেলিম বলেন, ‘খালেদা জিয়া যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষায় জঙ্গি, সন্ত্রাসী, যুদ্ধাপরাধী, আল কায়েদা, হরকাতুল জিহাদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। জঙ্গিদের সঙ্গে আলোচনা মানেই তাদের উৎসাহিত করা। আমরা জঙ্গিবাদকে উৎসাহিত করব না। আমরা জঙ্গি দমন করব। বাংলাদেশে জঙ্গিরা কখনও ক্ষমতায় আসতে পারবে না।’

বক্তব্যের এক পর্যায়ে শেখ সেলিম দেশের রাজনৈতিক ভবিষ্যত সম্পর্কে বলেন, ‘এ দেশে মুক্তিযোদ্ধাদের একটি মাত্র শক্তি থাকবে।’

শেখ সেলিম জিয়াউর রহমানকে ‘পাকিস্তানের অ্যাজেন্ট’ ও ‘নামধারী মুক্তিযোদ্ধা’ আখ্যা দিয়ে বলেন, জিয়া বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করেছেন। বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় ৪ নেতাকে হত্যা করেছেন, যুদ্ধাপরাধী শাহ আজিজ, আব্দুল আলিমকে মন্ত্রী করেছেন।’

বক্তব্যে পশ্চিমা কূটনীতিকদের সমালোচনা করে শেখ সেলিম বলেন, ‘আপনাদের গণতন্ত্র ও মানবাধিকার আটলান্টিকের ওপারে রাখুন। দয়া করে এখানে এসে নাক গলাবে না। সার্লি ম্যাগাজিন অফিসে ঢুকে জঙ্গিরা ৪ জনকে হত্যা করার পর ফ্রান্স জঙ্গিদের হত্যা করে। আপনারা তখন কথা বলেননি। আমার দেশের যুদ্ধাপরাধী ও মানবতা বিরোধীদের ব্যাপারে ব্যবস্থা নিলে আপনারা মানবাধিকারের কথা বলেন।’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ মোহাম্মদ ইউসুফ আলী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. আলহাজ্ব শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদের প্রশাসক চৌধূরী এমদাদুল হক প্রমুখ।

/এইচকে/এএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।