বিকাল ০৪:৩৯ ; শুক্রবার ;  ২২ নভেম্বর, ২০১৯  

ওষুধে ২০৩৩ সাল পর্যন্ত মেধাস্বত্ব ছাড় পাবে বাংলাদেশ

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

বাংলাদেশ ইতিমধ্যে নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে। এরপরও অন্যান্য স্বল্পোন্নত সদস্য দেশগুলোর (এলডিসি) সঙ্গে ২০৩৩ সাল অবধি ওষুধ শিল্পে মেধাস্বত্ব ছাড় সুবিধা পাবে বাংলাদেশ।

রবিবার সচিবালয়ে ওষুধ শিল্প খাতে মেধাস্বত্ব ছাড় প্রাপ্তির বিষয়ে অয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এ তথ্য জানান।

এতে অংশ নেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ফার্মাসিউটিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজের (বিএপিআই) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন, বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির মহাসচিব আব্দুল মুক্তাদির প্রমুখ।

তোফায়ের আহমেদ বলেন, গত ৬ নভেম্বর বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) বাণিজ্য সম্পর্কিত মেধাস্বত্ব অধিকার (ট্রিপস) কাউন্সিলের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে এলডিসিভুক্ত সদস্য দেশগুলোর জন্য এ সুবিধার মেয়াদ আরও ১৭ বছর বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, এর ফলে বাংলাদেশি ওষুধের মূল্যবৃদ্ধি পাবে না। পাশাপাশি বাড়বে রফতানি বাজার। এমনকি বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হলেও এ সুবিধা বহাল থাকবে।

তিনি আরও বলেন, ‘আগামী ৩১ ডিসেম্বর মেধাস্বত্ব সুবিধার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল। এ সুবিধার মেয়াদ পাঁচ বছরের বেশি বাড়বে না বলে অনেকে মনে করেছিলেন। তবে, সরকারসহ সকলের প্রচেষ্টায় মেয়াদ এতো বছর বাড়ানো হয়েচে।

প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ প্রথম ডাব্লিউটিও স্বল্পোন্নত দেশের জন্য ট্রিপসের মেয়াদ এতো বছরের বাড়িয়েছে বলে মন্ত্রী জানান।

উল্লেখ্য, মেয়াদ বাড়া‌তে যৌ‌ক্তিক কারণ তু‌লে ধ‌রে চল‌তি বছ‌রের ফেব্রুয়া‌রি‌তে  এ জন্য আবেদন করা হয়েছিল।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যু‌রোর তথ্য অনুসারে, ২০১৪-১৫ অর্থবছ‌রে ৭২.৬৪ মা‌র্কিন ডলারের ওষুধ রফতানি হয়। এর পরিমাণ আগের অর্থবছরের তুলনায় ৪ দশমিক ৯১ শতাংশ বেশি।

/এফএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।