রাত ০৯:১৪ ; রবিবার ;  ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯  

লিটনের আসনে প্রচারণার চেষ্টা: জাপার সাবেক এমপি কাদের লাঞ্ছিত

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

গাইবান্ধা প্রতিনিধি ।।

শিশু সৌরভের পায়ে গুলি চালিয়ে বিতর্কিত ও কারান্তরীণ সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের গাইবান্ধা-৩ আসনে নিজের প্রচারণা চালাতে গিয়ে স্থানীয় জনতার হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন ওই আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির নেতা কর্নেল ডা. আব্দুল কাদের খান।জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়নের থ্যালথ্যালির (গোডাউন বাজার) বাজারে বুধবার এ ঘটনা ঘটে।

জাতীয় পার্টির (এরশাদ) ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়ন শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক কওছর আজম হান্নু জানান, বিতর্কিত হওয়ায় লিটন সংসদ সদস্য পদ হারাবেন এবং ওই আসনে উপনির্বাচন হবে এমন আশায় আগাম নিজের প্রচার প্রচারণা করতে বের হন সাবেক সংসদ সদস্য কর্নেল কাদের। কয়েকজন নেতাকর্মীসহ নিজের প্রাইভেট কারযোগে বুধবার বিকালে থ্যালথ্যালির বাজারে গিয়ে জনসাধারণের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এসময় তিনি তাদের কাছে ভোটও প্রার্থনা করেন। এসময় উপস্থিত জনতা কিসের ভোট তা জানতে চান । উত্তরে কাদের খান বলেন, সরকার দলীয় এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন জেলহাজতে থাকায় সুন্দরগঞ্জে উপ-নির্বাচন হবে। এ কারণে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে আপনাদের কাছে ভোটসহ দোয়া চাইতে এসেছি। একথা শুনে স্থানীয় জনগণ ও আওয়ামী লীগ সমর্থকদের সঙ্গে কাদের খান ও তার ব্যক্তিগত সহকারী জোহার বাকবিতণ্ডা এবং একপর্যায়ে ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার আশঙ্কায় কাদের খান দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

আওয়ামী লীগের ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়ন শাখার সভাপতি হাবিবুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।তিনি বলেন, জনতা কর্নেল কাদেরকে চলে যেতে বলায় তিনি গাড়ি থেকে অস্ত্র বের করে তাদের গুলি করারও হুমকি দেন।

তবে অভিযোগের বিষয় নিয়ে সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল কাদের খানের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি জানান, স্থানীয় কিছু লোকজনের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়েছে। তবে লাঞ্ছিত হওয়া ও অস্ত্র বের করার বিষয়টি মিথ্যা।

সুন্দরগঞ্জ থানার ওসি ইসরাইল হোসেন জানান, ঘটনাটি তিনি লোকমুখে শুনেছেন। তবে এ নিয়ে কেউ কোনও লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

/টিএন/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।