ভোর ০৬:০৯ ; শনিবার ;  ১৯ অক্টোবর, ২০১৯  

ছাত্রলীগ নেতার মামলায় ‘পুরুষশূন্য’ গ্রাম

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

চাঁদপুর প্রতিনিধি।।

চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলার নায়েরগাঁও ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতার মামলায় লাকশিবপুর ও ঘোড়াধারী গ্রাম ‘পুরুষশূন্য’ হয়ে পড়েছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন। ক্ষমতাসীন দলের কিছু নেতাকর্মী ছাড়া ভিন্ন দল ও মতের পুরুষরা অন্যত্র গিয়ে রাত্রীযাপন করছেন বলে জানান তারা।

চাঁদপুরের পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার বলেন, ‘বিস্তারিত জানতে চেষ্টা করব। নিরীহ মানুষকে কোনওভাবে কেউ হয়রানি করতে পারবে না। বিষয়টি দেখছি।’

প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী নূরুল ইসলাম, মোস্তাক, জামাল ও সুফিয়ান জানান, লাকশিবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি নিয়োগকে কেন্দ্র করে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোশারেফ হোসেনকে ২নং নায়েরগাঁও দক্ষিণ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক তানজিদ হোসেন সদলবলে ২২ অক্টোবর সন্ধ্যায় উঠিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন। স্থানীয়রা বাধা দিলে ওই ছাত্রলীগ নেতা ও সঙ্গীরা পালিয়ে যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ঘটনার ‘রাজনৈতিক মোড়ক দিতে’ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা ওই এলাকার জাতীয়তাবাদী দলের ২৩ নেতাকর্মী ও ৫০/৬০ জনকে অজ্ঞাতনামা দেখিয়ে ২৫ অক্টোবর মতলব দক্ষিণ থানায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলার বাদী হন ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা তানজিদ মৃধা।

মামলার প্রেক্ষিতে পুলিশ ফখরুল নামে এক ‘সদ্য বিদেশ ফেরত’ ব্যক্তিকে আটক করার পরপরই গ্রেফতারাতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় নেতাকর্মীদের ভয়ে অনেকে এলাকা ছাড়তে শুরু করে। স্থানীয়দের ভাষায়, ‘যে বাজারে সন্ধ্যার পর জমজমাট থাকত, সেখানে এখন বিকালেই দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়।’

পুলিশের হাতে আটক ফখরুলের বাবা ছিদ্দিকুর রহমান জানান, ‘আমার ছেলে দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে প্রবাসে আছে। দুই মাস আগে দেশে এসেছে। তার কাছে টাকা চেয়েছিল বলে শুনেছি। হতে পারে টাকা দেয়নি বলেই তাকে আসামি করে দিয়েছে।’

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই মো. জহিরুল ইসলাম বলেন, ‘অভিযুক্ত ফখরুলকে নেতাকর্মীরা ধরে পুলিশকে অবহিত করলে,আমি তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসি। আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে। মামলার তদন্ত অব্যাহত আছে।’

/এইচকে/এসএস/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।