রাত ০৫:৪০ ; সোমবার ;  ২০ মে, ২০১৯  

সিমরান - রাজ বা অথবা কাজল-শাহরুখের ২০ বছর

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

সুরঞ্জনা শেখ।।

দুষ্টু ছেলে রাজ। পরীক্ষায় ফেল করে ইউরোপ ভ্রমণে রওনা দিল বন্ধুদের সঙ্গে। ট্রেনে রওনা দেওয়ার সময় তার হাত ধরল
 বাবা-মায়ের লক্ষ্মী মেয়ে সিমরান। এরপর ইতিহাস। না, ইতিহাস প্রেমের নয়। এই প্রেম নিয়ে তৈরি সিনেমা নিয়ে। রাজের সঙ্গে গেল বিশ বছর ধরে মেয়েটির জন্য লন্ডন থেকে পাঞ্জাবের গ্রামে পৌছেছে দর্শকরা। মার খেয়েছে সিমরানের হবু বরের কাছে। আর সিমরানের বাবার বকুনি হজমও করেছে। এই ইতিহাস সিমরান এবং রাজের। এই ইতিহাস দিলওয়ালে ‌'দুলহানিয়া লে যায়েঙ্গ'র। আজ এই সিনেমার বিশ বছরপূর্তি।

ইয়াশ রাজ ফিল্মসের এই সিনেমাটি বিগত বিশ বছর ধরে রাজত্ব করছে বলিউডে। আজও সিনেমা হলে হাউজফুল যায় এই সিনেমা। শুধু তাই নয়, কাজল এবং শাহরুখ খানের জীবনে টার্নিং পয়েন্ট হিসেবে ধরা হয় ডিডিএলযেকে (দুলহানিয়া লে যায়েঙ্গ)। কেনই বা হবে না! এই সিনেমায় চমকের পর চমক এসেছে প্রতিটা দৃশ্যে। বিভিন্ন স্টার এসেছেন বিভিন্ন চরিত্রে, যারা আজ মুম্বাই সেলিব্রেটি।

ধরে নেওয়া যাক করন জোহরের কথা। আজকের নামজাদা পরিচালক –প্রযোজক করন জোহর এই সিনেমাতে ছিলেন শাহরুখের বন্ধু। ওদিকে কুলজিতের বোনের চরিত্রে ছিলেন আজকের সফল উপস্থাপিকা মন্দিরা বেদি। কাজলের বোনের চরিত্রে কাজ করা ছোট্ট চুটকি আজকের বড় মডেল। নানান চমকে ঠাসা এই সিনেমার গল্পও ট্রেন্ড সেট করেছিল বলিউড ফিল্ম ইন্ডস্ট্রিতে। তৈরি করেছিল শাহরুখ কাজলের ভুবনজয়ী জুটি।

তাই শহরুখ এবং কাজলকে দিয়ে আরেক মারমার-কাটকাট পরিচালক রোহিত শেঠি বানালেন শুভেচ্ছামূলক প্রমো। যেখানে কাজল এবং শাহরুখকে দেখা যাচ্ছে সেই আগের মতন দুষ্টুমিতে ভরা আলাপে। ১৫ অক্টোবর ইউটিউবে প্রকাশিত হলো বিশেষ এই ভিডিওটি। এবং তা শুধুই উদযাপনের জন্য।

দেখুন ভিডিওটি:

/এম/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।