রাত ১১:২৩ ; বুধবার ;  ১৫ আগস্ট, ২০১৮  

নুরুল কাদের পুরস্কার পেলেন ৫ শিশুসাহিত্যিক

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

প্রতিটি শিশুর মধ্যে যে সৃষ্টিশীল সত্তা রয়েছে তার বিকাশ ঘটাতে প্রয়োজন তাদের সুস্থ মানসিক বিকাশের। আর সেক্ষেত্রে সবার আগে প্রয়োজন একটি  তাদের সৃজনশীল কাজে সম্পৃক্ততার। শিশুদের এই মৌলিক গুণগত উন্নয়নে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন শিশুসাহিত্যিকরা। আর তাদের কাজের স্বীকৃতি দিতে গত কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় এবারও পাঁচ শিশুসাহিত্যিককে দেওয়া হলো এম নুরুল কাদের শিশু সাহিত্য পুরস্কার-২০১৪।

শিশুসাহিত্যিক হালিম আজাদ পুরস্কার পেয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক ‘নীল বাংকার’ গ্রন্থের জন্য। ছড়া-কবিতা শাখায় ‘হাত ঝুমঝুম পা ঝুমঝুম’ গ্রন্থের জন্য পুরস্কার পেয়েছেন সৈয়দ নাজাত হোসেন। ‘সেরা কিশোর গল্প’ গ্রন্থের জন্য খন্দকার মাহমুদুল হাসান, ‘হাঁসজারুদের গল্প’ গ্রন্থের জন্য আহমেদ রিয়াজ, ‘আনুর সাইকেল’ গ্রন্থের প্রচ্ছদের জন্য বিপ্লব চক্রবর্তী। এ ছাড়াও কিশোর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে সম্মাননা পেয়েছেন পদ্মা রহমান।

বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদ মিলনায়তনে শুক্রবার বিকেলে বিজয়ী লেখকদের হাতে এ পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়। প্রতিটি পুরস্কারে ছিল ১৫ হাজার টাকার চেক, ক্রেস্ট ও সনদপত্র।

২০১৪ সালে সাধারণ গদ্যে এম নুরুল কাদের শিশু সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন আহমেদ রিয়াজ এবং প্রচ্ছদ অলংকরণে পেয়েছেন বিপ্লব চক্রবর্তী। লেখক ও শিল্পী ধ্রুব এষের লেখা 'আনুর বাইসাইকেল' গ্রন্থের অলংকরণের জন্য এই পুরস্কার পেয়েছেন বিপ্লব।

এ বিষয়ে বিপ্লব চক্রবর্তী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, রং আর তুলির সঙ্গে ছোটবেলা থেকেই আত্মিক সর্ম্পক ছিল। সেই ধারাবাহিকতায় ২০০৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের প্রিন্ট মেকিং বিভাগে ভর্তি হন। সেই টানেই এখন দুটি মাধ্যমেই কাজ করেন। ২০০৯ সালে কালের কণ্ঠে কাজ শুরু করেন কার্টুনিস্ট হিসেবে।

কাজের ধারাবাহিকতায় কেন বেছে নিলেন শিশুতোষ? এমন প্রশ্নের জবাবে বিপ্লব জানান,মানুষের কল্পনা প্রবণতা বা ভাবনার বিকাশের শুরু শিশুবেলা থেকে। এক্ষেত্রে শিশুদের নিয়ে লেখা বইগুলোর প্রচ্ছদ খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

বিপ্লব ছোটদের বইয়ের অলংকরণের কাজ করছেন ২০১০ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলা থেকে। প্রচ্ছদ ও অলংকরণ করেছেন ৪০টিরও বেশি বইয়ের। শিশুদের বইয়ের অলংকরণ নিয়ে আন্তর্জাতিক প্রকাশনা সংস্থা রুম টু রিডের সঙ্গেও কাজ করছেন।

এদিকে, ২০১৪ সালে প্রকাশিত প্রাণী বিষয়ক গ্রন্থ 'হাঁসজারুদের গল্প' বইয়ের জন্য পুরস্কার পেয়েছেন আহমেদ রিয়াজ। রিয়াজের বইয়ের সংখ্যা আশিরও বেশি। মূলত শিশুদের জন্যই লেখেন তিনি।

এম নুরুল কাদের ফাউন্ডেশন আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন এমিরেটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান। আয়োজক সংগঠন নুরুল কাদের ফাউন্ডেশনের চেয়ারপারসন রোকেয়া কাদেরের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা হোসেইন, এম নুরুল কাদেরের সন্তান ওমর কাদের খান প্রমুখ।

১৯৯৯ সাল থেকে এম নুরুল কাদের ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম শুরু হয়। শিশু সাহিত্যে পুরস্কার দেওয়া শুরু হয়েছে ২০০০ সাল থেকে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমিরেটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান বলেন, ‘একাত্তরে পাবনার ডিসি থাকাকালে নুরুল কাদের পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে অস্ত্রধারণ করেন। তিনিই বাংলাদেশ সরকারের নামে সেখানে প্রশাসন চালু করেন এবং ১০ এপ্রিল পর্যন্ত পাবনাকে মুক্ত রাখেন। বাংলাদেশের গার্মেন্ট শিল্পেও তিনি একজন পথিকৃতের ভূমিকা পালন করেছেন।’

মোহাম্মদ নুরুল কাদের খান ছিলেন মুজিবনগর সরকারের প্রথম সচিব। ১৯৯৮ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর তিনি মারা যান।

/এআই/এমপি/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।