দুপুর ১২:৪২ ; বুধবার ;  ২২ মে, ২০১৯  

প্রিন্স মাহমুদের কবিতায় ‘আইএস-হলিউড’ ব্যঙ্গ

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বিনোদন প্রতিবেদক।।

ঢালিউড, টলিউড কিংবা বলিউডও নয়। সরাসরি হলিউডের কাছে  'আইএসআইএস, দ্য লিজেন্ড' নামের একটি ছবি বানানোর আবেদন জানিয়েছেন দেশের অন্যতম গীতিকবি-সুরকার প্রিন্স মাহমুদ। শুধু আবেদন করেই ক্ষান্ত হননি তিনি। বলে দিয়েছেন ছবিটির চিত্রনাট্য, দৃশ্য এবং সম্ভাব্য চরিত্রগুলোও। এখানেও থামেননি তিনি। হলিউড নির্মাতাদের লিখে দিয়েছেন, ছবিটির শেষ দৃশ্যের শেষ লেখাটিও (এন্ড টাইটেল)।

শুক্রবার প্রিন্স মাহমুদ তার ফেসবুক ওয়ালে প্রকাশ করেন তার লেখা ‘প্রিয় হলিউড, একটা ছবি বানাও’ শীর্ষক একটি কবিতা। যে কবিতার পঙক্তিতে উঠে এলো রাশিয়া-আমেরিকার চলমান প্রাণঘাতি বৈরি প্রসঙ্গ। উঠে এসেছে হলিউডের ছবিগুলোর নির্লজ্জতার বিষয়ও। ব্যঙ্গ করে লেখা এই কবিতায় হলিউডের ছবিগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রের নীতি আর রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের বিষয়টি উঠে এসেছে। সম্প্রতি আইএসআইএস-এর ওপর রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির সাহসী অভিযান কবিতায় প্রশংসিত হয়। অপর দিকে হলিউডের ছবিগুলোতে রাশিয়াকে ছোট করে আমেরিকার সেনাবাহিনীর অযাচিত প্রশংসা করা হয় সেটিও তুলে ধরেছেন প্রিন্স মাহমুদ।

কবিতাটি এমন-

প্রিয় হলিউড, একটা ছবি বানাও।
নাম হোক 'আইএসআইএস, দ্য লিজেন্ড'।

দেখাও,
রাশিয়া কতোটা বর্বরভাবে হামলা চালিয়েছে আই এসের উপর, আমেরিকা এখনো পৃথিবীর কতো ভালো চায়,

মুল থিম হোক মার্কিন সেনাদের বীরত্ব আর সাহসিকতা, কতোটা উদারপন্থী আমেরিকা !
ন্যায়পরায়নতাসহ সমস্ত মহৎ গুণের শীর্ষস্থানীয় আদর্শ।

একটা ছবি বানাও-
প্রিয় হলিউড, একটা ছবি বানাও।
শেখাও,
শৃঙ্খলা- সৌন্দর্য পরমানন্দ ও গতিময়তার দর্শন।

পরিচালক হিশেবে স্পিলবার্গ অথবা তার যোগ্য কোনও অনুসারীকেই নিও কিন্তু।
আর পুতিনের চরিত্রটিকে ভীরু -কাপুরুষ- নপংশুক দেখাতে পারো,
অন্য মাত্রা পাবে।

শেষের দিকে দেখাও ওই লিজেন্ডের কবরে সবাই একটা করে বুলেট রেখে শ্রদ্ধা জানাচ্ছে।
আর লেখা উঠছে,
Based on a True Story
In 2015 Russia killed 1396 innocent ISIS soldier ...

এমন সাহসী এবং ব্যঙ্গাত্মক কবিতা লেখা ও প্রকাশ প্রসঙ্গে প্রিন্স মাহমুদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আইএস ইস্যুতে আমি আমার ভেতরের ক্রোধটাকে দমাতে পারিনি। তাই লিখলাম। প্রতিনিয়ত এমন বর্বরতা আর কত মুখ বুজে সওয়া যায়?’

/এমএম/এএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।