ভোর ০৭:১৩ ; মঙ্গলবার ;  ১৯ নভেম্বর, ২০১৯  

বিডিএফ মিটিং হতে পারে নভেম্বরে, প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার

প্রকাশিত:

বাংল ট্রিবিউন রিপোর্ট ॥

আসন্ন ২০১৬-২০ সাল মেয়াদে সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় দাতাদের অংশগ্রহণ সুনিশ্চিত করতে আগ্রহী সরকার। এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে  দাতাদের যুক্ত করার পরিকল্পনাও রয়েছে সরকারের। বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে দাতাদের অবহিত করতে আগামী নভেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য বাংলাদেশ উন্নয়ন ফোরামের (বিডিএফ) বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছে (অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ) ইআরডির একটি সূত্র।

জানা গেছে, সরকারের দীর্ঘমেয়াদি বিভিন্ন পরিকল্পনাগুলোও বৈঠকে দাতাদের সামনে উপস্থাপন করা হতে পারে। এ সব পরিকল্পনার বিষয়ে দাতাদের যে কোনো মতামত বা পরামর্শ গ্রহণ করা হবে।

দীর্ঘ ৫ বছর পর প্রতীক্ষিত বাংলাদেশ উন্নয়ন ফোরামের (বিডিএফ) দুই দিনব্যাপী বৈঠক নভেম্বরের ১৫ ও ১৬ তারিখ ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। দু’দিনব্যাপী এ বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হবে রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে। ২০১০ সালের ১৫ ও ১৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় বিডিএফ’র সর্বশেষ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

সূত্র জানিয়েছে, বৈঠকটি সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে ইআরডি সচিব মেজবাহ উদ্দিনকে প্রধান করে কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্য সংখ্যা ২৫ জন বলে জানা গেছে। দুদিনব্যাপী এ বৈঠকে ভিশন-২০২১, সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) ও দারিদ্র্য বিমোচন এই চারটি বিষয়কে প্রাধান্য দেওয়া হতে পারে। বৈদেশিক অর্থছাড় বাড়ানো, গুরুত্বপূর্ণ খাতগুলোয় দাতাদের সহযোগিতা ইত্যাদি বিষয় নিয়েও আলোচনা হবে।

ইতিমধ্যেই বৈদেশিক সহায়তা ব্যবহারকারী বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে ১৮টি খাতে এলসিজির ওয়ার্কিং গ্রুপের কাজ শুরু হয়েছে। নতুন যৌথ সহযোগিতা কৌশলপত্রের একটি খসড়া রূপরেখা বিভিন্ন দাতা সংস্থা ও সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কাছে এরই মধ্যে উপস্থাপন করা হয়েছে।

এ ছাড়াও ২০১৩ সালের ২৮ মার্চ ও একই বছরের ১৪ জুন পরপর দুটি এলসিজি বৈঠক, যৌথ সহযোগিতা কৌশলপত্র (জেসিএস) বাস্তবায়নে কর্ম পরিকল্পনা (অ্যাকশন প্ল্যান) তৈরি এবং সহায়তা বিষয়ক নীতি (এইড পলিসি) বিষয়ে একটি উপস্থাপনা (ওয়ার্কিং ব্রিফ) তৈরি ও এ সংক্রান্ত বৈঠকের কাজ শেষ করেছে ইআরডি। এগুলো করাই হচ্ছে বৈঠকের প্রস্তুতি হিসেবে।

জানা যায়, পদ্মা সেতুতে অর্থায়ন নিয়ে বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে মতপার্থক্য ফলশ্রুতিতে সৃষ্টি হয় উন্নয়ন সহযোগীদের সঙ্গে দূরত্ব। এ কারণেই ২০১০ সালের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতিবছর একবার বিডিএফ বৈঠক করার সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়নি।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতেও একবার বিডিএফ বৈঠকের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল, কিন্তু সে সময়ে দেশের রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে তা বাতিল হয়ে যায়। এরপর এপ্রিলে নেওয়া উদ্যোগও অনিবার্যকারণবশত বাতিল হয়ে যায়।

/এসআই/এফএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।