রাত ০১:৫১ ; সোমবার ;  ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮  

রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প বাতিল করেই পুরস্কারটা নিন: আনু মুহাম্মদ

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের ‘চ্যাম্পিয়নস অব দ্য আর্থ’ পুরস্কার লাভ করায় অভিনন্দন জানিয়ে তেল, গ্যাস, বিদ্যুৎ ও বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, ‘আপনি পুরস্কার পেয়েছেন এতে আমরা আনন্দিত। কিন্তু ওই পুরস্কার গ্রহণ করার আগে আপনি রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প বাতিল করবেন।আর তা না হলে এই পুরস্কার গ্রহণ করা আপনার উচিত হবে না।’

বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে সাউথ এশিয়ান ফর হিউম্যান রাইটস (এসএএইচআর) আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

আনু মুহাম্মদ অভিযোগ করে বলেন, ‘বাংলাদেশ ও ভারত মিলে সুন্দরবনকে ধ্বংস করার চেষ্টা করছে। যেখানে ইউনেসকো থেকে শুরু করে বড় বড় আন্তর্জাতিক মাধ্যম বলছে কোনওভাবেই সুন্দরবনের কাছে রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করা উচিত হবে না, সেখানে আমাদের দেশের সরকার কিভাবে এই সিদ্ধান্ত নেয়?’

তিনি আরও বলেন, যেসব স্থান ‘ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ’ভুক্ত, সেসব স্থানের ২৫ কিলোমিটারের মধ্যে এমন প্রকল্প থাকা উচিত নয়। কিন্তু আমাদের উপদেষ্টারা বলছেন, রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র ৭৫ কিলোমিটার দূরে। যা ডাহা মিথ্যা।

সরকারকে আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এই রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্পের বিরোধিতা শুধু বাংলাদেশের লোকরাই করছে না। খোদ ভারতীয়রাও এর বিপক্ষে। তারাও প্রতিবাদ জানাচ্ছে। তাই সরকারের উচিত এই বিধ্বংসী সিদ্ধান্ত থেকে ফিরে আসা।’

রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্পের অর্থায়নের প্রসঙ্গ টেনে অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, ‘এ প্রকল্পে শুধু বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠানই নয়, বিদেশি অর্থিক প্রতিষ্ঠানও বিনিয়োগ করতে চাচ্ছে না। তাই সময় থাকতে এ প্রকল্প বন্ধ করুন।’

অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আবু সাঈদ বলেন, ‘কেন সরকার জনগণের কথা শুনবে না? সরকারকে অবশ্যই গুরুত্ব দিয়ে দেখতে হবে এবং জনগণের মতামতকে সম্মান করতে হবে। আর যে রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণ করলে জীববৈচিত্র্যের ক্ষতি হবে সে প্রকল্প হাতে নিয়ে লাভ কী? আমরা উন্নয়ন চাই। তবে তা সুন্দরবন ধ্বংস করে নয়।’

দেশের জনগণকে সঙ্গে নিয়ে রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের বিরুদ্ধে জনমত তৈরি করতে হবে বলেও জানান তিনি।

খুশি কবীরের সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন আইন, বিচার ও শালিস কেন্দের নির্বাহী পরিচালক সুলতানা কামাল, টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান প্রমুখ।      

/এফএ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।