রাত ১১:১৩ ; শুক্রবার ;  ২২ জুন, ২০১৮  

অ্যাপ্লিক পর্দায় ঘরের সজ্জা

প্রকাশিত:

নাদিয়া মাহমুদ ।।

জানালার পর্দায় বড় একটি গাছ। সে গাছের পাতা এক পর্দা থেকে ঝরে পড়ছে আরেক পর্দায়! এমন সব চমৎকার নকশা যদি চান পর্দায়, তবে অ্যাপ্লিকের কাজ করিয়ে নিতে পারেন। ইদানীং ঘর সাজাতে অ্যাপ্লিকের নকশার ব্যবহার চোখে পড়ছে বেশ। এতদিনের ব্যবহার করা ব্লক প্রিন্ট বা অন্য নকশার বিছানার চাদর,পর্দা পরিবর্তন করে ফেলতে পারেন অ্যাপ্লিকের কাজ করা চাদর ও পর্দা দিয়ে। নিমিষেই বদলে যাবে ঘরের সাজসজ্জা। কোন ঘরে কেমন পর্দা থাকবে এবং তার সাথে মিলিয়ে ঘরের অন্যান্য সব কিছু কিভাবে সাজাবেন সেই বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন  ইন্টেরিওর প্রতিষ্ঠান ফারজানা’র ব্লিসের স্বত্তাধিকারী ফারজানা গাজী।

দেশীয় ঘরানার আসবাব আছে এমন ঘরেই অ্যাপ্লিকের পর্দা বেশি মানানসই। কাঠ, বাঁশ, বেত এবং ঐতিহ্যবাহী ও ছিমছাম নকশার আসবাব দিয়ে ঘর সাজালে সে ঘরে রাখতে পারেন অ্যাপ্লিকের কাজ করা পর্দা। সাথে মিলিয়ে খাটে বিছাতে পারেন অ্যাপ্লিকের চাদর। পর্দার রঙ থেকে যেকোনও রঙ নিয়ে চাদর ও কুশনের রঙ বাছাই করুন।

বসার ঘরের পর্দা হওয়া চাই লাল, কমলা, বেগুনীর মতো উজ্জ্বল রঙের। সোফা এবং ডিভানের কুশন কভারের রঙ বাছাই করতে পারেন পর্দার রঙের বিপরীত কোন রঙের। চাইলে উৎসবভিত্তিক রঙও ব্যবহার করা যায়। যেমন পহেলা বৈশাখে লাল সাদা অথবা বিজয় দিবসে লাল সবুজ রঙের সমন্বয়ে অ্যাপ্লিকের কাজ করা কুশন বা পর্দা বসার ঘরে ব্যবহার করতে পারলে দারুন হয়। খাওয়ার ঘরে সবুজাভ রঙের পর্দা ভালো লাগবে। ডাইনিং টেবিলে রানার-এর রঙ মিলাতে পারেন পর্দার সঙ্গে। শোবার ঘরে রাখতে হবে হালকা রঙের পর্দা। কারণ ক্লান্তি শেষে সেখানে গিয়েই মিলবে একটু প্রশান্তি। বেডরুমের পর্দার জন্য তাই এমন রঙ বাছাই করা চাই যা দেখলেই শান্তি লাগবে। চাপা সাদা,আকাশী ইত্যাদি রঙ এক্ষেত্রে ভালো লাগবে। বাচ্চাদের ঘরে গোলাপী, হালকা বেগুনী, হলুদ রঙ মানাবে। ঘরের আসবাবপত্রের রঙ হালকা হলে পর্দা হবে গাঢ় রঙের। আসবাব গাঢ় হলে পর্দার রঙ হালকা হলেই ভালো দেখাবে। অ্যাপ্লিকের মধ্যে ফুলেল, জ্যামিতিক, কার্টুন এই ধরনের নানারকম নকশা করা যেতে পারে। পর্দার শুধু উপরের অংশে কাজ থাকতে পারে অথবা একদম মাঝে যেকোনও একটি মোটিভ করতে পারেন। এছাড়াও দুই সাইডের দুইটা পর্দার ধার ঘেষে এমনভাবে অ্যাপ্লিক করতে পারেন যাতে দুইটা পর্দা পাশাপাশি টেনে দিলে মাঝ বরাবর একটা নকশা ফুটে ওঠে। ঘর বড় হলে তবেই পর্দায় বড় নকশার অ্যাপ্লিক ভালো লাগবে। ছোট ঘরের পর্দার নকশা খুব বড় হলে বেমানান দেখাবে। পর্দায় ব্লক ও অ্যাপ্লিক দুটো একসাথেও রাখা যেতে পারে। এতে বরং নতুনত্ব ফুটে উঠবে।

ঘর সাজাতে পছন্দ করেন আলভিনা জাহান। পড়াশোনাও করেছেন এই বিষয়ে। কথা হলো তার সঙ্গে। তিনি মনে করেন দেয়ালের রঙ হালকা হলে গাঢ় রঙের পর্দায় ঘরকে উজ্জ্বল দেখাবে। অ্যাপ্লিকের কাজ করা পর্দা ব্যবহার করলে মৃদু আলোর ব্যবস্থা রাখা যেতে পারে ঘরে।

অ্যাপ্লিকের কাজ করা পর্দা পাবেন আড়ং,অঞ্জন’স, চরকা, রাইফেল স্কয়ারে। এছাড়া বিভিন্ন অনলাইন শপও বিক্রি করে বাহারি নকশার অ্যাপ্লিক পণ্য। চাইলে কাপড় কিনে নিজের পছন্দ অনুযায়ী বানিয়েও নিতে পারেন।

 

ছবি- সংগ্রহ

এনএ/ আরএফ 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।