রাত ০২:২৫ ; রবিবার ;  ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০  

পিৎজা খেতে 'পিৎজা গাই'

প্রকাশিত:

তৌহিদুল ইসলাম তুষার।।

পিৎজার উপর ইতালিয়ানদের আধিপত্য থাকলেও ব্রেড উইথ ফ্লেভার টপিংসের জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই এর বেশ সমাদর রয়েছে। ইতালিয়ানরা ডো থেকে রুটি এবং এর উপরের ডেকোরেশন সবই করেন হাতে। তারপর ওভেনে দিয়ে নির্দিষ্ট সময় পর পরিবেশন করেন। ঠিক একই প্রক্রিয়ায় পিৎজা তৈরি করেন রেস্টুরেন্ট পিৎজা গাই-এর শেফ ও স্বত্বাধিকারী নাভিদ হাসান। জানালেন ইতালিতে অনেকগুলো রেস্টুরেন্টে শেফ হিসেবে কাজ করেছেন। সেই অভিজ্ঞতা সঙ্গে নিয়েই শুরু করেছেন পিৎজা গাই। নাভিদ বলেন, ‘ইতালিতে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্নভাবে পিৎজা তৈরি করা হয়। একটি থেকে আর একটির ফ্লেভার সম্পূর্ন ভিন্ন। ইতালির বিভিন্ন রেস্টুরেন্টের বেস্ট পিৎজা যোগ করা হয়েছে পিৎজা গাই- এর মেন্যুতে।’

পিৎজা গাই মূলত যাত্রা শুরু করে ২০০৯ সালের শেষের দিকে। তবে তখন পুরোপুরি অনলাইন নির্ভর ছিল এটি। নাভিদ এবং স্ত্রী ফারজিনা আমিন দুজন বাসায় বসেই তৈরি করতেন মজাদার পিৎজা। অনলাইন ডেলিভেরিতে বেশ ভালো সাড়া পাওয়ায় এ বছর বড় পরিসরে শুরু করেন রেস্টুরেন্ট পিৎজা গাই।

বনানী এসে এআইইউবি-এর অ্যাডমিশন ক্যাম্পাসের পাশের রাস্তা ধরে কবরস্থান রোডের দিকে যেতে পেয়ে যাবেন রেস্টুরেন্টটি। কাচের দরজা পেরিয়ে ভেতরে ছিমছাম সাজানো পরিবেশ। কর্ণারের দিকে রয়েছে একটি ভিন্ন বসার জায়গা। কাচের দেওয়ালে পিৎজার আঁকিবুঁকি। পিৎজা কিভাবে তৈরি হচ্ছে সেটাও দেখতে পারবেন স্বচক্ষে। ঝকঝকে কিচেন কর্ণারের একপাশে বিশাল চুলা। পাশেই ওভেন। ডো থেকে বড় রুটি তৈরি করে হতে বানানো টপিং আর ফ্লেভার আইটেম হাত দিয়ে সাজিয়ে দেওয়া হচ্ছে রুটির ওপর। তারপর সোজা ওভেনে। এই প্রক্রিয়া দেখতে দেখতেই টেবিলে এসে যাবে খাবার। এবার টেস্টের পালা। টেবিলে খাবার জন্য প্রস্তুত ভেজিটেরিয়ান’স নাইটমারি। যদিও কোথাও নেই সবজির ছিটেফোঁটা। তিনকোণা টুকরোটি প্লেটে নিতেই দেখা মিললো চিজের। মুখে পুরতেই চিজের আধিক্য আর বারবিকিউ চিকেনের স্বাদ আলাদাভাবেই ধরা দিলো। টক ফ্লেভারের বিফ সালামি আপনার খাবার রুচিকে বাড়িয়ে দিবে দ্বিগুণ। বুঝলাম কেন এতো স্পেশাল ইতালিয়ান পিৎজা। নেই মসলা কিংবা ফ্লেবার টপিংসের বাড়াবাড়ি। টপিংসগুলো সঠিক পরিমাণে থাকায় প্রতি কামড়ে আলাদা স্বাদ পাবেন আপনি।

সন্ধ্যা হতেই ভিড়টা একটু বেশি জমে এখানে। আশেপাশের বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়ারা ও আবাসিক এলাকার অনেকেই ঢুঁ মারেন রেস্টুরেন্টিতে। এখানে খাবারের দামও সাধ্যের মধ্যেই। ভোজনরসিকদের কথা মাথায় রেখে পিৎজার পাশাপাশি রয়েছে বাড়তি আয়োজন। অ্যাপেটাইজারের মধ্যে পাবেন- স্যান্ডুইস স্টাইলের খাবার সফসিনি, কালজোন বেনকো। চিকেন খেতে যারা পছন্দ করেন তাদের জন্য থাকছে- বাফেলো উইংস, হানি বারবিকিউ উইং, পটেটো ওয়েডগেজ, চিকেন ক্যাসোনাট সালাদ এবং মজাদার পাস্তা। এগুলো সবই ইতালিয়ান খাবার। এছাড়া পিৎজার বিশেষ আয়োজন তো আছেই। পিৎজা স্যাক্স, ৫ ধরনের ক্লাসিক ইতালিয়ান পিৎজা ও ১৩ ধরনের পিৎজা গাই স্পেশাল পিৎজা পাবেন এখানে। রয়েছে বিভিন্ন ধরনের সেট মেন্যু। যেমন- মিল ডিলে যে কোন মিডিয়াম সাইজের স্পেশাল পিৎজা, ফ্রেঞ্জ ফ্রাই, ১/২ লিটার পেপসি পাওয়া যাবে ৭৫০ টাকায়। কাপল ডিলে যে কোন লার্জ স্পেশাল পিৎজা, ফ্রেঞ্জ ফ্রাই, ১/২ লিটার পেপসি পাবেন ৮৫০ টাকায়। ফ্যামিলি ডিল-এ রয়েছে ২টি বড় পিৎজা, ৮ পিস চিকেন উইংস, ১ লিটার পেপসি ১৭০০ টাকায়। পিৎজা ফিয়েস্তা ডিলে পাবে দুটি ভিন্ন ভিন্ন আইটেম ২১৫০ ও ২৫৫০ টাকায়।

ঠিকানা: বাড়ি- ১০৭, রোড-৪, ব্লক-বি, বনানী, ঢাকা।
ফোন: ০১৭৭৫৮৮৫৫৩৩

 

রেস্টুরেন্ট রেসিপি
 

ভেজিটেরিয়ান নাইটমার পিজা

উপকরণ:
ময়দা দিয়ে পিৎজার জন্য তৈরি ডো, গ্রিল্ড চিকেন, রোস্টেট বিফ, চিকেন সালামি, বিফ সালামি, বিফ পেপারনি, ফেস বেসিল, টমেটে পিউরি, অলিভ ওয়েল।

যেভাবে তৈরি করবেন: প্রথমে একটি পিৎজা ডো তৈরি করুন। এর উপর টমেটো পিউরি ব্রাশ করে দিন। তারপর টপিংস, হার্স মিক্স, চিজ, সালামি পেপার দিয়ে পুরো ডো-কে সাজিয়ে নিন। ওভেনে ৩০০ ডিগ্রি তাপমাত্রায় ৪ থেকে ৫ মিনিট রেখে তারপর নামিয়ে পরিবেশন করুন।


 

জুসি মিটবল স্পেগেটি

উপকরণ:
মিটবল, টমেটো পিউরি, রসুন, বাটার, স্পেগেটি, বেজিল পাতা, পারমিজাজ চিজ এবং লবণ পরিমানমতো।

যেভাবে তৈরি করবেন: প্রথমে একটি ফ্রাইপেনে বাটার নিয়ে গলিয়ে নিন। এরমধ্যে কয়েক টুকরা রসুন দিয়ে বাদামি করে ভাজুন। এতে মিটবল দিয়ে জ্বাল দিয়ে স্পেগেটি দিয়ে নাড়তে থাকুন। তারপর বাকি উপকরণগুলো দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

ছবি: সাজ্জাদ হোসেন


/এনএ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।