রাত ০২:৩৪ ; সোমবার ;  ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮  

স্বস্তির পোশাকে

প্রকাশিত:

লাইফস্টাইল ডেস্ক।।

চলে এসেছে শরৎকাল। কিন্তু হুটহাট বৃষ্টির দেখা পাওয়া যাচ্ছে এখনও। হঠাৎ বৃষ্টি তো পরক্ষণেই রোদের অত্যাচার। ভ্যাপসা গরম আর যখন তখন বৃষ্টির এই সময়ে পোশাক হওয়া চাই আরামদায়ক। ফ্যাশন ডিজাইনার সারাহ্‌ দীনা জানালেন এই আবহাওয়ায় কেমন পোশাকে স্বস্তি পাবেন সে বিষয়ে।

  • দিনের বেলা ব্যবহার করতে পারেন হালকা জমিনের ফেব্রিক। এগুলোর সুবিধা হলো ভিজে গেলে সহজে শুকিয়ে যায়। আবার ঘেমে অস্বস্তির কারণও হয় না। সুতি, লিনেন, মাখন, সিল্ক ও জর্জেটের পোশাক আরামদায়ক এ আবহাওয়ায়।
     
  • পোশাকের লম্বা খুব বেশি না হওয়াই ভালো। হাঁটুর একটু নিচু পর্যন্ত লম্বা পোশাক এখন স্বস্তিদায়ক।
     
  • শুধুমাত্র নেক লাইনের নকশাতেও পোশাক হয়ে উঠতে পারে আকর্ষণীয়। আর এ সময়ে নেক লাইন নিয়ে করতে পারেন নিরীক্ষা। যেকোনও নেক লাইন মানিয়ে যাবে পোশাকে।
     
  • পোশাকের হাতা আঁটসাঁট ও কনুই পর্যন্ত হলে স্বস্তি পাবেন দিনভর ছোটাছুটিতে।
     
  • সালোয়ার, প্যান্ট ইত্যাদির ক্ষেত্রে খুব একটা ঢিলেঢালা না হয়ে একটু চাপা ধরনের হলে চলাফেরায় সুবিধা হবে।
চিরায়ত কালো রঙ পরতে পারেন রাতের অনুষ্ঠানে
  • ওড়না বা স্কার্ফ হিসেবে জর্জেট কিংবা শিফন ব্যবহার করতে পারেন।
     
  • পোশাকের কাটিং- এর ক্ষেত্রে এখন এসিমেট্রিকাল নকশা এড়িয়ে যাওয়াই ভালো। নকশা হোক সহজ সরল।
     
  • অলংকারিক নকশা পানিতে ভিজলেই নষ্ট হয়ে যায়। তাই এ ধরনের নকশার ব্যবহার এখন কম করাই ভালো।
     
  • ব্রাশ পেইন্টের নকশা করা পোশাক ব্যবহারে খেয়াল রাখতে হবে যেন পানিতে ভিজে না যায়। কারণ পানিতে ভিজে এ ধরনের নকশা নষ্ট হওয়ার সম্ভবনা খুব বেশি থাকে।
     
  • গাঢ় রঙ এখন ফ্যাশনে এগিয়ে আছে। পরতে পারেন নীল, বেগুনি, ছাই, গোলাপি, লালের যেকোনও শেড অথবা চিরায়ত কালো। হালকা শেডের রঙ যেমন গোলাপি, আকাশি, ক্রিম, হলুদ এবং সাদা এই সময় এড়িয়ে যাওয়াই ভালো। নিয়ন রঙ এখন চলছে খুব, ভিন্নতা আনতে বেছে নিতে পারেন এগুলোও।

 

মডেল: অহনা

/এনএ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।