রাত ০৮:৩৮ ; শুক্রবার ;  ২০ জুলাই, ২০১৮  

গর্ভবতী মায়েরা কলিজা খাবেন?

পুষ্টিবিদের পরামর্শ

প্রকাশিত:

লাইফস্টাইল ডেস্ক ।।

পুষ্টিবিদ আদিবা ফারজিন

কলিজা একটি ভিটামিন এ ও আয়রন সমৃদ্ধ খাবার হলেও গর্ভাবস্থায় কলিজা খাওয়া নিষেধ। এর কারণটা হয়তো জানা নেই। এই না জানার কারণে অনেকেই গর্ভাবস্থায় অধিক পুষ্টিলাভের জন্য কলিজা খেয়ে থাকেন। এভাবেই না জেনে বা অল্প জেনে নিজের ক্ষতি করছেন অনেকেই বা কলিজা খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন গর্ভবতী মাকে। বাংলা ট্রিবিউন লাইফস্টাইলের পাঠকের জন্য আজ তাই এ সম্পর্কে খোলাখুলি পরামর্শ দিচ্ছেন পুষ্টিবিদ আদিবা ফারজিন।

ভিটামিন এ যে কাজ করে:

  • দৃষ্টি শক্তি তৈরিতে
  • রোগ প্রতিরোধে
  • ত্বকের সুস্থতায়
  • প্রোটিন তৈরিতে

ভিটামিন এ যেসব খাদ্যে পাওয়া যায়:

  • প্রাণীজ উৎস (retinol হিসেবে)-মাখন, ডিম, পনির, কলিজা, তৈলাক্তমাছ প্রভৃতি।
  • উদ্ভিজ্জ উৎস (beta carotene হিসেবে)- গাজর, মিষ্টি কুমড়া, পাকা আম, পাকা পেঁপে প্রভৃতি।

চাহিদা:

পুরুষদের জন্য: দৈনিক ৯০০ মাইক্রোগ্রাম

মহিলাদের জন্য: দৈনিক ৭০০ মাইক্রোগ্রাম

গর্ভাবস্থায়: দৈনিক ৭৫০ মাইক্রোগ্রাম

* উল্লেখ্য ভিটামিন এ একটি fat soluble  ভিটামিন যা শরীরে জমা থাকতে পারে তাই প্রতিদিন না খেলেও চলে।

কখন নিষেধ:

যখন বাচ্চা নেওয়ার চেষ্টা করছেন অর্থ্যাৎ গর্ভাবস্থায়

যে কারণে নিষেধ:

কলিজায় প্রতি ১০০ গ্রামে  ৬৫০০ মাইক্রোগ্রাম ভিটামিন এ থাকে রেটিনল হিসেবে। যদি বেশিরভাগ ভিটামিন এ রেটিনল থেকে আসে তবে তা বাচ্চার জন্মগত ত্রুটি সহ অন্যান্য ক্ষতি করতে পারে।

করণীয়:

  • ভিটামিন এ পাওয়ার জন্য কলিজা বাদে অন্যান্য উৎস হতে খাওয়াই বাঞ্ছণীয়।
  • সাপ্লিমেন্টারি ভিটামিন ও মিনারেলে ভিটামিন এ রেটিনলl হিসেবে আছে কিনা দেখতে হবে।
  • যেসব সাপ্লিমেন্ট কলিজা থেকে তৈরি সেগুলো বাদ দিতে হবে।
  • ডায়েট এবং সাপ্লিমেন্টারি ওষুধ একজন ডায়টেশিয়ানের তত্ত্বাবধায়নে হওয়া বাঞ্ছণীয়।

 

ছবি: মেমোরিয়া

আরএফ

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।