সকাল ১০:৪৯ ; মঙ্গলবার ;  ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯  

দেহ ব্যবসায় রাজি না হওয়ায় অমানবিক নির্যাতন

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি।। ভালো বেতনে বাসায় কাজ দেওয়ার কথা বলে ঢাকায় নিয়ে গিয়ে দেহ ব্যবসায় বাধ্য করার চেষ্টা হয়েছে এক কিশোরীকে। এতে রাজি না হওয়ায় অমানবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে ওই গৃহকর্মী। নির্যাতিত কিশোরীটি বর্তমানে গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় গৃহকর্ত্রীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নির্যাতিতার বাড়ি কাশিয়ানী উপজেলা সদরের দক্ষিণপাড়া গ্রামে। রবিবার সকালে এ ঘটনার প্রতিবাদে ও দোষীদের শাস্তির দাবিতে কাশিয়ানী উপজেলা সদরে মানববন্ধন করেছে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। নির্যাতিতার পিতা (নাম প্রকাশ করা হলো না) জানান, সংসারে টাকার অভাবে ১৪ মাস আগে মেয়েকে একই গ্রামের ইসমাইল হোসেনের ঢাকার মিরপুরের বাসায় কাজ করার জন্য পাঠান তিনি। কিন্তু, ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পর থেকে ইসমাইলের স্ত্রী নাসরিন সুলতানা সুমি তার মেয়েকে দিয়ে দেহ ব্যবসায় করার চেষ্টা করে। এতে তার মেয়ে রাজি না হওয়ায় সুমি তার ওপর নিয়মিতভাবে নির্যাতন করত। নির্যাতিতা মেয়েটি জানায়, গত ৬ মে সুমি কয়েকজন যুবককে তার বাড়িতে ডেকে এনে ওদের সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক করার নির্দেশ দেয় তাকে। এতে রাজি না হওয়ায় সুমি তাকে প্রথমে মারধোর করে। এরপর গরম খুনতি দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছ্যাঁকা দেয় ও হাতুড়ি দিয়ে নির্যাতন করে। 'নির্যাতনের এক পর্যায়ে ওই বাসা থেকে পালিয়ে স্থানীয়দের বিষয়টি জানাই' বলে মেয়েটি 'এরপর স্থানীয়রাই আমাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।' এ ঘটনায় ৮ মে মিরপুর থানায় একটি মামলা করার পর পুলিশ নাসরিন সুলতানা সুমিকে গ্রেফতার করে। পরদিন শুক্রবার কিশোরীটিকে ঢাকা থেকে গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী হাসপাতালে ভর্তি করে তার বা‌‌বা। মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসআই মিজানুর রহমান জানান, এ ঘটনায় গৃহকর্মী নাসরিন সুলতানা সুমিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গৃহকর্মী নির্যাতনের ঘটনায় সুমির বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। কাশিয়ানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. তরুণ মণ্ডল জানান, কিশোরীটির ওপর অমানবিক নির্যাতন করা হয়েছে। সে এখন শারীরিক ও মানসিকভবে বিপর্যস্ত। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে গরম খুনতির ছ্যাঁকা ও হাতুড়ির আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। নারীর হাতে নারী নির্যাতনের এই ঘটনা বড়ই অমানবিক।

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।