দুপুর ০১:১৮ ; শনিবার ;  ২০ জানুয়ারি, ২০১৮  

কাটিয়ে উঠুন হতাশা

প্রকাশিত:

লাইফস্টাইল ডেস্ক।।

জীবনের চলার পথে নানান ধরণের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটতেই পারে। হঠাৎ স্বপ্ন ভেঙে গেলে থমকে যায় মানুষ, হারিয়ে ফেলে উৎসাহ। বিষণ্ণতা গ্রাস করে। হারিয়ে যায় নতুন করে স্বপ্ন দেখার সাহস। হতাশা হয়ে উঠতে পারে জীবনের সুন্দর কিছু মুহূর্তের হারিয়ে যাওয়ার কারণ। আবার অনেক সময় দৈনন্দিন জীবনে আনন্দ ও বৈচিত্র্যের অভাবে অবসন্ন হয়ে পড়ে মন। দীর্ঘদিনের নিয়ম মাফিক জীবনযাপনে হতাশ হয়ে পড়ে মানুষ। তবে কোন কিছুতে ভেঙে পড়লে চলবে না। জীবনকে ভাবতে হবে নতুন করে। বিষাদ কাটিয়ে ওঠার জন্য প্রয়োজন প্রচন্ড মনের জোর। পাশাপাশি হতাশা ঝেড়ে ফেলে জীবনকে আনন্দময় করে তোলার জন্য চাই নিজের ও অন্যের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ। জেনে নিন বিষণ্ণতা কাটিয়ে ওঠার উপায় সম্পর্কে:

  • হতাশা কাটিয়ে ওঠার জন্য সবার আগে নিজের সাহায্য নিন। কারণ একজন মানুষ নিজেকেই সবচেয়ে ভাল জানে ও বুঝতে পারে।
     
  • ব্যর্থতা মানেই জীবন এখানেই শেষ, এভাবে চিন্তা করা বন্ধ করতে হবে। নতুনভাবে বিকল্প পথে সফলতার পথ খুঁজে বের করতে হবে।
     
  • সবসময় নিজের পছন্দসই কাজে ব্যস্ত থাকার চেষ্টা করুন। বিষণ্ণতা ভুলে থাকতে পারবেন।
     
  • কোন বিষয়ে হতাশা কাজ করলে সেটা আপনার সবচেয়ে কাছের বন্ধুটির সঙ্গে আলোচনা করুন। বন্ধুর সহায়তা আপনাকে মানসিকভাবে সাহায্য করবে।
     
  • আত্নবিশ্বাস বাড়াতে বিভিন্ন ধরণের সৃজনশীল কাজ করতে পারেন।
     
  • শখের কাজগুলো করুন যত্ন নিয়ে। যেমন বাগান করা, পোশাক ডিজাইন করা অথবা রান্না করা।
     
  • যতদূর সম্ভব নেতিবাচক চিন্তাভাবনা এড়িয়ে চলুন। আমাকে পারতেই হবে- এভাবে চিন্তা করুন। তাকিয়ে দেখুন আপনার আশেপাশেই রয়েছে এ ধরণের সফলতার অজস্র উদাহরণ।
     
  • আপনজনের সঙ্গে নিজের আনন্দের স্মৃতিগুলো নিয়ে আলোচনা করতে পারেন।
     
  • প্রতিদিন কিছুটা সময় নিজের জন্য রাখুন। সে সময় পছন্দের কাজ যেমন, গান শোনা, টিভি দেখা কিংবা লেখালিখি করতে পারেন।
     
  • কখনো নিজেকে একা ভাববেন না। বন্ধু ও স্বজনদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখুন নিয়মিত। তাদের সঙ্গে গল্প করুন, আড্ডা দিন।
     
  • জীবন একঘেয়ে লাগলে মাঝে মধ্যে পরিবার কিংবা বন্ধুদের সঙ্গে দূরে কোথাও ঘুরে আসতে পারেন।
     
  • নিজের প্রতি যত্ন নিন। ভোরে খানিকটা হাঁটাহাঁটি করতে পারেন। এতে দেহের অবসন্নতা দূর হবে। খাওয়া দাওয়া করুন নিয়মিত। ঘুমাতে চেষ্টা করুন রুটিন মাফিক।
     
  • অফিসের কর্মী ও প্রতিবেশীদের সঙ্গে গড়ে তুলুন সুসম্পর্ক। বন্ধুত্বপূর্ন পরিবেশ আপনার মনোবল বাড়াতে সাহায্য করবে।
     
  • কোন ভুল করলে সেটা স্বীকার করুন নির্দ্বিধায়। হতাশ না হয়ে আলোচনা করুন খোলামেলা। দেখবেন আশেপাশের মানুষগুলোই সাহায্য করবে আপনার বিষণ্ণতা দূর করার জন্য।
     
  • মনে রাখবেন, জীবনে যতো বড় দুর্ঘটনাই ঘটুক না কেন, তা জীবনের চাইতে বড় হতে পারে না। তাই হতাশ হয়ে কখনো মাদক গ্রহণ করবেন না কিংবা ভুল পথে পা বাড়াবেন না।
     
  • নিজেকে ভালবাসুন। আত্নবিশ্বাস রাখুন নিজের উপরে। জীবনে সাফল্য আসবেই।

 

/এনএ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।