রাত ১০:০৮ ; মঙ্গলবার ;  ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮  

অন্দরে নান্দনিক স্টোরেজ

প্রকাশিত:

সোহেলী সায়মা সেঁজুতি॥ 

অন্দর ছোট হোক কিংবা বড়, ঠিকঠাক স্টোরেজ ব্যবস্থা না থাকলে অগোছালো হয়ে যায় দ্রুত। একটু বুঝেশুনে ঘর সাজালে স্টোরেজও হতে পারে গৃহসজ্জার অংশ। একসময় স্টোরেজ মানেই ছিলো আলাদা রুম কিংবা কোন এক কোণায় অগোছালো করে রাখা অপ্রয়োজনীয় জিনিস। এ ধরনের স্টোরেজ কেবল দৃষ্টিকটুই নয়, পাশাপাশি অস্বাস্থ্যকরও। তবে এখনকার ইন্টেরিওরে স্টোরেজেও থাকছে নান্দনিকতা ও সৃজনশীলতার ছোঁয়া।

একটু লক্ষ্য করলে দেখা যায় সব বাসায়ই অল্প কিছু জায়গা অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে থাকে। আপনার সৃজনশীলতায় এই অব্যবহৃত জায়গাটিই হতে পারে বহুমাত্রিক কাজে ব্যবহৃত একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান। পড়ে থাকা জায়গাটিকে স্ক্রিনিং করে স্টোরেজের মতো করে নিলে অপ্রয়োজনীয় অনেক কিছুই চোখের সামনে থেকে লুকিয়ে ফেলতে পারেন। ঘর বড় হলে আসবাবের পাশাপাশি ওয়াল কেবিনেট রাখতে পারেন। কেবিনেটের নকশা হতে পারে ঘরের অন্যান্য আসবাবের রং ও নকশার সঙ্গে মিলিয়ে। দেয়ালজুড়ে থাকা স্টোরেজটি চমৎকার আসবাব হিসেবে শোভাবর্ধন করবে আপনার অন্দরের।     

রুম ছোট হলে হিডেন স্টোরেজের ব্যবস্থা করতে পারেন। এতে জায়গা যেমন বাঁচে, তেমনি অপ্রয়োজনীয় জিনিসও থাকে চোখের আড়ালে। ব্যতিক্রমি ডিজাইনে তৈরি করা যায় এ ধরনের স্টোরেজ। যেমন ছোট্টমনির বাথরুমে যদি আসল দেয়ালের আদলে ফলস দেয়াল তৈরি করা হয় তবে এই দুই দেয়ালের মধ্যবর্তী স্থানে বানিয়ে নেয়া যায় প্রয়োজনীয় সামগ্রী রাখার জন্য ড্রয়ার কিংবা তাক। একই কৌশল অবলম্বন করতে পারেন যেকোনও রুমের ক্ষেত্রে। রান্নাঘরে হিডেন স্টোরেজের সবচেয়ে বেশি দরকারি। স্লাইডিং ডোর দিয়ে স্টোরেজ করলে আরোও বেশি জিনিস স্টোর করা যাবে। অনেকগুলো ড্রয়ারসহ টেবিল রাখতে পারেন ঘরের যেকোনো স্থানে। এতে অপ্রয়োজনীয় জিনিস স্টোর করার পাশাপাশি অন্যান্য কাজের জিনিসও রাখা যাবে টেবিলে।   

ঘরে যেকোনও সময় অতিথি আসতেই পারে। কিন্তু সেজন্য তো অতিরিক্ত বিছালা বালিশ দিয়ে ঘর এলোমেলো করে রাখলে চলবে না। টেম্পোরারি ফ্লোরিং বেডের ব্যবস্থা থাকলে খুব সহজেই সেটা ফোল্ড করে স্টোরেজে রেখে আড়াল করে ফেলতে পারেন।

লেখক: ইন্টেরিওর আর্কিটেক্ট
ছবি: আর্কিডেন ইন্টিরিওর


/এনএ/ আরএফ

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।