দুপুর ০২:৩৩ ; সোমবার ;  ২০ মে, ২০১৯  

বিদ্যুৎ ও গ্যাসের দাম সমন্বয়ের পরামর্শ

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

অনেকেই বলছেন অতিদ্রুত দেশের গ্যাস সম্পদ শেষ হয়ে যাবে। কিন্তু গ্যাস শেষ হবে না। বর্তমানে যে পরিমাণ গ্যাস আছে তা দিয়ে আগামী ১০-১২ বছর চলবে। সরকারের অনেক পরিকল্পনা আছে। এই সময়ের মধ্যে নতুন গ্যাসক্ষেত্র আবিষ্কার করা হবে। এ ছাড়া, নতুন অনেক জায়গা পড়ে আছে। সেখানেও  নতুন নতুন গ্যাস ক্ষেত্র পাওয়া যাবে। এমন তথ্য জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

তিনি বিদ্যুৎ ও গ্যাসের দাম বাড়ানোর ইঙ্গিত দিয়ে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) চেয়ারম্যান এ আর খানকে উদ্দেশ করে বলেছেন, “জ্বালানি ও বিদ্যুতের মূল্য সমন্বয়ের প্রয়োজন আছে। বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে প্রচুর অর্থের যোগান দিতে হয়।”

জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস উপলক্ষে রবিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে পেট্রোবাংলার হলরুমে ‘সাশ্রয় কর জ্বালানি - বাঁচাও সম্পদ, বাঁচাও ধরণী’ শীর্ষক সেমিনারে সভাপতির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, “বর্তমানে বাসা-বাড়িতে ১৩ শতাংশ, সিএনজিতে ৬ শতাংশ এবং ক্যাভটিভে ১৭-১৮ শতাংশ গ্যাস ব্যবহার করা হয়। এ সব ক্ষেত্রে তেল ব্যবহার করে গ্যাস সাশ্রয় করতে পারি।”

সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি উপদেষ্টা ড. তৌফিক ই ইলাহী চৌধুরী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সভাপতি তাজুল ইসলাম এমপি।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বিইআরসি চেয়ারম্যান এ আর খান, জ্বালানি বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব নাজিম উদ্দিন চৌধুরী, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান ড. ইশতিয়াক আহমদ, বিপিসির চেয়ারম্যান এ এম বদরুদ্দোজা, ভূ-তত্ত্ব জরিপ অধিফতরের মহাপরিচালক ড. নিহার উদ্দিন, পেট্রোবাংলার পরিচালক প্রকৌশলী মো. কামরুজ্জামান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, “বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে গিয়ে আমাদের অনেক অবকাঠামো উন্নয়ন করতে হয়। তাতে প্রচুর অর্থের প্রয়োজন হয়। এ ছাড়া সরকারের নেওয়া গ্যাস অনুসন্ধান ও উৎপাদন পরিকল্পনা বাস্তবায়নে বিশাল অর্থের প্রয়োজন। তাই মূল্য সমন্বয় না করলে এই অর্থ আসবে কোথা থেকে ।”

/এসআই/এফএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।