রাত ০৩:৫৩ ; মঙ্গলবার ;  ১২ নভেম্বর, ২০১৯  

ব্যাংককে সাশ্রয়ী হোটেল

প্রকাশিত:

নাজিয়া লোপা।।

আসছে ছুটির মৌসুম। ঈদ আর তারপরেই পূজার বন্ধ। এসময় অনেকেই দেশের বাইরে কাটাতে চান অবসরটাকে। কাছেপিঠে বেড়ানো, কেনাকাটার জন্য অনেকেই পছন্দ করেন থাইল্যান্ড-এ ঘুরতে যেতে। অবসর কাটানোর সব উপাদানে ঠাসা থাইল্যান্ড কাছে টানলেও জানতে হবে কোথায় থাকা যায় বা কি করা যায়। কারণ অবসর কাটানোর খরচটাও থাকা চাই হাতের মুঠোয়। বাংলা ট্রিবিউন লাইফস্টাইলের সঙ্গে জেনে নিন ব্যাংককে কম খরচে থাকার কিছু হোটেলের নাম ঠিকানা।

 

আইবিস ব্যাংকক নানা

সুকুমভিত সই ৪-এ অবস্থিত এই থ্রি স্টার হোটেলটি থাকার জন্য আদর্শ হতে পারে। সিয়াম প্যারাগন মলের একদম কাছের এই হোটেল ওয়াইফাই ফ্রি, আছে সকালে নাশতার ব্যবস্থা। চাইলে এখান থেকে শহরে বেড়ানোর জন্য ভাড়া করতে পারেন গাড়িও। ১,১৩৭ থেকে এর রুম ট্যারিফ শুরু।

 

অ্যাট মাইন্ড একিসইকউটিভ সুইটস

সুকুমভিত রোডের প্রাইম স্পটে এই হোটেলটি অবস্থিত। সই ৮৫-এর কাছাকাছি এই ছিমছাম হোটেলটির খুব কাছেই আছে স্কাইলাইন ট্রেনের স্টেশন। এর ধারে কাছে আছে স্থানীয় খাবারের অসংখ্য দোকান।এর ট্যারিফ শুরু ৯৭৩ বাথ থেকে।

 

ফিওং ন্যাকরন ব্যালকনি রুমজ অ্যান্ড ক্যাফে

ব্যাংককের ঐতিহ্যবাহী স্থান এবং প্রত্নতাত্বিক স্থাপনার কাছাকাছি থাকতে চাইলে এটি হতে পারে আদর্শ স্থান।এটি একটি থ্রিস্টার হোটেল।এখান থেকে অল্প দুরুত্বে আছে খ্যাতনামা ফুলের মার্কেট এবং গ্র্যান্ড প্যালেস। ২১,০৭৪ বাথ থেকে এর রুম ট্যারিফ শুরু।

 

আইবিস ব্যাংকক রিভারসাইড

সুবর্ণভূমি এয়ারপোর্টের খুবই কাছে অবস্থিত হোটেল গা ঘেঁষে বয়ে গেছে চাও ফ্রায়া নদী। সিটি সেন্টার থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরের এই হোটেলেটির মনোমুগ্ধকর পরিবেশ অতিথিদের ভালো লাগবেই। এখানে রুমের ট্যারিফ শুরু ১,১৯৮ বাথ থেকে।  

 

আই চেকইন সিলম

১,০৯৮ বাথে এখানে পেয়ে যেতে পারেন আপনার কাঙ্খিত রুমটি। অসাধারণ ইন্টিরিয়রে সাজানো এই হোটেলটি সিলম রোডে অবস্থিত। এর পরিবেশ যেকোনও পর্যটককে ভ্রমণের আনন্দ দেয় হোটেলের করিডোর থেকেই।

 

রেড প্ল্যানেট আশোকা, ব্যাংকক

টার্মিনাল ২১ শপিং মলের খুব কাছে অবস্থিত এই হোটেলের সর্বনিম্ন রুম ট্যারিফ ১০৩২ বাথ। কাছে আছে স্কাই ট্রেন এবঙ পাতালের স্টেশনগুলোও। হোটেলটির ধারে কাছে আছে মজার মজার খাবারের দোকান। ব্যাংককের নাইটলাইফ উপভোগ করতে চাইলে এটি হতে পারে ভ্রমণপ্রেমীদের আদর্শ ঠিকানা।

 

লিউব ডে ব্যাংকক সিয়াম স্কয়ার

অনেক তো হোটেল হলো, এবার হোস্টেলের পালা। পাশ্চাত্যেও কিন্তু পর্যটকদের কাছে হোস্টেল বেশ জনপ্রিয়। তাতে খরচ এবং চিন্তা দুটোই কমে যাই। ১,২৩০ বাথ থেকে শুরু হওয়া ট্যারিফে উপভোগ করতে পারেন সিয়াম এলাকার ব্যাংকক-জীবন। ফ্যাশন বুটিকের কাছের এই হোটেলটি থেকে খুব সহজেই ট্রেনে চড়ে যাওয়া যায় ব্যাংককের অপর প্রান্তে।

 

আইএমএম ফিউশন সুকুমভিত

এর রুম ট্যারিফ কত? মাত্র ৮৮১ বাথ থেকে শুরু! সুইমিংপুল, ওয়াইফাই, ব্রেকফাস্ট বুফে আর হোটেলজুড়ে মরোক্কান আমেজ- সব মিলিয়ে এটি পর্যটকের জন্য আদর্শ স্থান। আর হ্যাঁ, এর খুব কাছেই আঝে স্কাই ট্রেনের স্টেশনও।

 

খাওজান প্যালাস হোটেল

আদি ব্যাংককের ঐতিহ্য দিয়ে সাজানো হয়েছে খাওজান প্যালাস হোটেল।সুবর্ণভূমি এয়ারপোর্ট থেকে দৃষ্টিনন্দন এই হোটেলটিতে ট্যাক্সি করে যেতে লাগবে দেড় ঘণ্টা। এখান থেকে গ্রান্ড প্যালাস, লাভা ক্লাব, জেলাবো ক্লাবে গুরে আসা যাবে সহজে। আর খরচটা নির্ভর করে বুকিং-এর সময়ের উপর।

 

রামবুটরি ভিলেজ ইন

অ্যাডভেঞ্চার করতে ইচ্ছা হচ্ছে? তাহলে এই হোটেল হতে পারে পর্যটকের ব্যংকক-ঠিকানা। খাওজান রোডের এই হোটেলটি থেকে অনায়াসে যাওয়া যায় ব্যাংককের যেকোন সীমানায়। যারা ব্যাংককের পার্টি স্ট্রিটের কাছে থাকার পাশাপাশি সাশ্রয় এবঙ ভালো খাবারের কথা চিন্তা করেন তাদের জন্য রামবুটরি ভিলেজ ইন আদর্শ।

সুত্র: ব্যাংকক.কম

 

 

আরএফ 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।