রাত ১১:০৩ ; রবিবার ;  ২০ অক্টোবর, ২০১৯  

চাইছি তোমার বন্ধুতা

প্রকাশিত:

নাঈম রায়হান ভূঁইয়া।।

আজ আগস্টের প্রথম রবিবার। বিশ্ব বন্ধু দিবস। বিভিন্ন দেশে নিজ নিজ সাংস্কৃতিক আবহে পালিত হয় দিনটি। বন্ধু শব্দটির মধ্যে মিশে আছে পরম নির্ভরতা আর বিশ্বাস। এমনকি মাঝে মাঝে পরিবারের কিছু সদস্যের চাইতেও বেশি নির্ভরতা খুঁজে পাওয়া যায় একজন বন্ধুর মাঝে।

ফরাসি লেখিকা আনাইস নিনের ভাষায়, ‘একেক বন্ধু আমাদের মধ্যে একেকটা দুনিয়ার প্রতিফলন। হয়তো সে আসার আগ পর্যন্ত ওই দুনিয়াটাই জন্মায় না। আর কেবল বন্ধুর সঙ্গে মিলনের মধ্য দিয়েই ওই দুনিয়া জন্মাতে পারে।’

গ্রিক দার্শনিক ও বিজ্ঞানী অ্যারিস্টটল যেমন বলেছেন, ‘বন্ধু হতে চাওয়া একটা ক্ষণিকের কাজ, কিন্তু এটা এমন ফল যা খুবই ধীরে পাকে।’

চলুন জেনে নেই বন্ধু দিবস সম্পর্কিত কিছু তথ্য :

* হলমার্ক কার্ডসের প্রতিষ্ঠাতা জয়েস হল ১৯১৯ সালে সর্বপ্রথম বন্ধু দিবস উদ্যাপনের কথা চিন্তা করেন।

* ১৯৩৫ সালে মার্কিন কংগ্রেস আগস্টের প্রথম রবিবারকে জাতীয় বন্ধু দিবস হিসেবে ঘোষণা করে।

* ১৯৫৮ সালের ২০ জুলাই প্যারাগুয়েতে ডাক্তার আর্টেমিও ব্রাকো বিশ্ব বন্ধু দিবস পালনের প্রস্তাব করেন। সে সময় তিনি তার বন্ধুদের সঙ্গে সন্ধ্যার নাশতা করছিলেন।

* ১৯৯৭ সালে জনপ্রিয় কার্টুন চরিত্র ‘উইনি দ্য পুহ’কে বন্ধুত্বের দূত ঘোষণা করা হয়।

* বন্ধু দিবসের সাধারণ উপহারের মধ্যে রয়েছে ফুল, কার্ড, ব্যান্ড ইত্যাদি।

* বন্ধু দিবসের থিম সং মনে করা হয় পিটার লেভেজলির লেখা 'উইদ আ লিটল হেল্প ফ্রম মাই ফ্রেন্ডস' গানটিকে।

* বন্ধুত্ব নিয়ে উল্লেখযোগ্য গানগুলোর মধ্যে রয়েছে মারায়া ক্যারি এবং হুইটনি হাউসটনের ‘হোয়েন ইউ বিলিভ’, ম্যাডোনার ‘আই উইল রিমেম্বার’, মারায়া ক্যারির ‘আই উইল বি দেয়ার’, ববি ব্রাউনের ‘আই অ্যাম ইউর ফ্রেন্ড’ প্রভৃতি।

/এমপি/আরএফ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।