ভোর ০৭:৪৭ ; মঙ্গলবার ;  ১৫ অক্টোবর, ২০১৯  

সেপ্টেম্বরের মধ্যে সুদহার বাড়াতে পারে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত:

বিজনেস ডেস্ক।।

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভ সিসেস্টমস (ফেড) আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে সুদের হার বাড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছে। ২০০৮ সালের অর্থনৈতিক মন্দার সময় থেকেই নির্ধারিত প্রায় শূন্য শতাংশ সুদের হার অপরিবর্তিত রাখছে এ ব্যাংক। খবর গার্ডিয়ান ও ব্লুমবার্গ।

বেশির ভাগ বাজার পর্যবেক্ষক, আগামী ১৬-১৭ সেপ্টেম্বর ফেডের পরবর্তী নীতিনির্ধারণী বৈঠকেই সুদের হার বাড়ানোর প্রত্যাশা করছেন ।সেপ্টেম্বর পরবর্তী বৈঠকের সময় হচ্ছে অক্টোবর ও ডিসেম্বরে।

ফেডের চেয়ারম্যান জ্যানেট ইয়েলেন চলতি বছরেই সুদের হার বাড়ানোর বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন। তবে এ বিষয়ে তিনি কিছু জানাননি ।

বিনিয়োগকারীরা এ বিষেয়ে একটি নিশ্চিত সংকেতের প্রত্যাশা করেছিলেন, কিন্তু, গত বুধবার ফেডের নীতিনির্ধারণী সভায় সুদের হার বৃদ্ধির বিষয়ে নির্দিষ্ট সময় জানানো হয়নি।

ফেডের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও বেকারত্বের হার ক্রমাগত কমতে থাকলেই কেবল বাড়ানো হবে সুদের হার।

ফেড প্রধান জুলাই মাসের শুরুতে কংগ্রেসকে জানিয়েছিলেন, “অর্থনীতি বর্তমানে যথেষ্ট ভালো। এ অবস্থান সৃষ্টিতে সহযোগিতা করেছে নিম্ন সুদ হার। আমরা লক্ষ্যে প্রায় কাছাকাছি চলে এসেছি।আমাদের অর্থনীতির জন্যই সুদের হার বাড়ানো প্রয়োজন বলে মনে করছি।”

গত বুধবার ফেডের প্রকাশিত এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্রে বেকারত্বের হার, ভোক্তাব্যয় ও আবাসন খাতে উন্নতির প্রতি নির্দেশ করা হয়। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, বর্তমানে দেশটির বেকারত্বের হার কমে ৫ দশমিক ৩ শতাংশে দাঁড়িয়েছে, যা সাত বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী মূল্যস্ফীতি ক্রমে ২ শতাংশে উন্নীত করার প্রত্যাশা করছে ফেড।

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুসারে, বার্ষিক ভিত্তিতে দেশটির অর্থনীতি দ্বিতীয় প্রান্তিকে বেড়েছে ২ দশমিক ৫০ শতাংশ। তবে, এতে কর্মসংস্থান বাড়লেও মূল্যস্ফীতির হার কম হওয়ায় বিষয়টি নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন নীতিনির্ধারকরা।

/এফএই/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।