সন্ধ্যা ০৭:০৫ ; বৃহস্পতিবার ;  ১৮ জুলাই, ২০১৯  

জগিংয়ের টুকিটাকি

প্রকাশিত:

লাইফস্টাইল ডেস্ক।। 

সুস্থ থাকার জন্য প্রতিদিন কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি করার বিকল্প নেই। তবে জগিংয়ের সময় মনে রাখতে হবে কিছু বিষয়-

  • সকালে ঘুম থেকে উঠেই ভারি ব্যায়াম করা অনুচিত। কিছুক্ষণ জগিং করে তারপর ভারি ব্যায়াম করুন।
     
  • জগিংয়ের জন্য ঢিলেঢালা পোশাক নির্বাচন করুন। টি শার্ট, ঢিলা প্যান্ট অথবা ট্রাউজার পরা যেতে পারে। জগিং করার জন্য নির্ধারিত পোশাক পাওয়া যায় মার্কেটে। কিনে নিতে পারেন সেগুলো। 
     
  • জগিংয়ের জন্য জুতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ। একটানা হাঁটতে কিংবা দৌড়াতে যেন সমস্যা না হয় সেজন্য নরম ও আরামদায়ক কেডস বেছে নিন।
     
  • জগিংয়ে যাওয়ার সময় সাথে রুমাল, তোয়ালে ও পানির বোতল রাখতে পারেন।
     
  •  ছোট জায়গায় জগিং করলে একঘেঁয়েমি চলে আসে। তাই জগিং করার জন্য বাড়ির আশেপাশের খোলা পার্ককে বেছে নিন। সম্ভন না হলে প্রশস্ত রাস্তা কিংবা প্রচুর গাছপালা আছে এমন স্থান নির্বাচন করুন।
     
    মডেল: জুবায়দা তাপসী, ছবি: আরমান হোসেন বাপ্পি

     
  • অভ্যাস না থাকলে প্রথম দিনই বেশীক্ষণ হাঁটবেন না। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে। প্রতিদিন একটু একটু করে হাঁটার পরিমাণ বাড়ান।
     
  • বন্ধুরা মিলে একসাথে হাঁটতে বের হতে পারেন। এতে জগিংয়ের সময়টাকে বিরক্তিকর মনে হবে না। একা একা বের হলে কানে হেডফোন লাগিয়ে শুনতে পারেন পছন্দের গান। 
     
  • হাঁপিয়ে গেলে কখনোই জগিং চালিয়ে যাবেন না। বিশ্রাম নিয়ে তারপর আবার শুরু করুন।
     
  • সম্ভন হলে সঙ্গে অতিরিক্ত পোশাক রাখুন। ঘেমে গেলে চট করে পরিবর্তন করে নিতে পারবেন। 
     
  • অতিরিক্ত খাওয়া দাওয়ার পর জগিংয়ে বের হবেন না। এতে হাঁসফাঁস লাগতে পারে।
     
  • জগিংয়ে মনঃসংযোগ থাকাটা জরুরী। হাঁটার সময় বার বার থামবেন না। একটানা খানিক্ষন হাঁটার পর বিশ্রাম নিয়ে নিন। জগিং করার সময় বারবার পানি খাওয়াও ঠিক নয়। গলা শুকিয়ে গেলে বিশ্রাম নেওয়ার সময় পানি খান। 
     
  • যারা সকালে জগিং করতে পারেন না তারা বিকালে বা সন্ধ্যায় বেরিয়ে পরতে পারেন হাঁটতে। তবে কখনো কড়া রোদে জগিং করবেন না। খুব ক্লান্ত থাকা অবস্থায়ও জগিং করা ঠিক নয়। কর্মক্ষেত্র থেকে ফিরে একটু বিশ্রাম নিয়ে তারপর জগিং শুরু করুন।
     
  • বহুদিনের জগিংয়ের অভ্যাস হঠাৎ করে ছেড়ে দিবেন না। এতে পরবর্তীতে অভ্যস্ত হতে সমস্যা হতে পারে।
     
  • জগিংয়ের সময় ঘাম হয় বেশি। সেজন্য হাঁটাহাঁটি শেষ হলে পানি অথবা পানিয় জাতীয় খাবার খান প্রচুর পরিমাণে। 
     
  • ডায়াবেটিস কিংবা হৃদরোগীরা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী জগিংয়ের সময় ও পরিমান নির্ধারণ করুন। 
     
  • নিয়মিত জগিংয়ের পাশাপাশি নিত্যদিনের খাদ্য তালিকা বাছাইয়ের ক্ষেত্রেও সচেতনতা জরুরী। 



/এনএ/ 

    

 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।