রাত ০৯:২৪ ; সোমবার ;  ২৪ জুন, ২০১৯  

ঈদের ছুটিতে খাগড়াছড়িতে হাজারো পর্যটক

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

জসিম উদ্দিন মজুমদার, খাগড়াছড়ি॥

চলমান ঈদের ছুটিতে খাগড়াছড়ি মুখরিত পর্যটকদের পদচারণায়। হাজার হাজার পর্যটক আগমনে খুশি হোটেল ব্যবসায়ীসহ পর্যটন সংশ্লিষ্টরা। জেলার আকর্ষণীয় স্থানগুলোতে যোগাযোগের জন্য পর্যাপ্ত গাড়ির পাশাপাশি প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

­­খাগড়াছড়ি জেলায় এমনিতেই সবুজ পাহাড়ের ছড়াছড়ি । তার ওপরে পাহাড়ের বুক চিড়ে বয়ে যাওয়া চেঙ্গী, মাইনী আর ফেনী নদী খাগড়াছড়ি জেলাকে সাজিয়েছে অপরুপ সাজে। চারিদিকে অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, সবুজ পাহাড়, এবং ক্ষুদ্র-ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠির বৈচিত্র্যময় জীবন-সংস্কৃতির কারণে পর্যটকদের কাছে ক্রমেই আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে এ জেলা।

জেলায় হর্টিকালচার পার্ক, আলুটিলার প্রাকৃতিক গুহা, রিছাং ঝর্না, মাটিরাংগার শতবর্ষী বটগাছ, মানিকছড়ির বনলতা এগ্রো প্রাইভেট লিমিটেড, মহালছড়ির দেবতা পুকুর, দিঘীনালার হাজাছড়া-তৈদুছড়া ঝর্ণাসহ রয়েছে শতাধিক পর্যটন স্পট। হাজার হাজার প্রকৃতিপ্রেমী ভিন্নমাত্রার আমেজ-ভিন্ন স্বাদ পেতে তাই ছুটে এসেছেন সবুজাভ পাহাড়ঘেরা খাগড়াছড়িতে।

ঝিনাইদহ থেকে আসা রুহুল আমিন নামের এক পর্যটক জানান, তিনি স্বপরিবারে এসেছেন। খাগড়াছড়ির প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, আলুটিলার গুহা ও রিছাং ঝর্ণা দেখে ভালো লেগেছে।

রুমানা ইসলাম নামের আরেক পর্যটক জানান, তিনি চট্টগ্রাম থেকে এসেছেন। খাগড়াছড়ির প্রাকৃতিক দৃশ্য, সর্পিল রাস্তা, নদী ও জেলা পরিষদ দেখে তার ভালো লেগেছে।

বেসরকারী হোটেল গাইরিং এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরা জানান, অনেক পর্যটক আসায় ভালো ব্যবসা হচ্ছে বলে তারা খুশি।

খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মো. মাসুদ করিম ঈদে পর্যটকদের খাগড়াছড়িতে আমন্ত্রণ জানিয়ে বলেন, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগের জন্য  খাগড়াছড়ি অত্যন্ত চমৎকার জায়গা। তাছাড়া দেশি-বিদেশি পর্যটকদের জন্য বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা আছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

/এমআর/টিএন/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।