রাত ১১:২৭ ; বৃহস্পতিবার ;  ১৮ এপ্রিল, ২০১৯  

রাজনীতিকদের ঈদের দিনটি পরিবার ও স্বজনদের

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

এমরান হোসাইন শেখ, সালমান তারেক শাকিল ও চৌধুরী আকবর হোসেন।।

দেশের সবচেয়ে বড় উৎসবগুলোর একটি ঈদুল ফিতর। সারা পৃথিবীর মুসলমান সম্প্রদায় অনেক অায়োজন করেই দিনটি পালন করে। পিছিয়ে থাকে না বাংলাদেশের মুসলমানরাও। শুক্রবার থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত টানা বেশ কয়েকটি দিনের জন্য ভরপুর অানন্দে মেতে থাকবে এবার দেশবাসী। পুরো দেশের অানন্দের এ অভিযাত্রায় যুক্ত হয়েছেন দেশের রাজনীতিকরাও। প্রতিদিনকার রাজনৈতিক ব্যস্ততার ক্লান্তি-অবসাদ ঝেড়ে ফেলতে তারাও ছুটছেন অবকাশে। ঈদের এ অবকাশে কেউ হয়তো স্বজনের পাশে থাকবেন দেশে, কেউ দেশের বাইরে।

কয়েকটি দলের উল্লেখযোগ্য পরিমাণ নেতাকর্মীদের ঈদের অানন্দ কাটাতে হবে জেলখানার সেলের ভেতরে। তবে এবারের ঈদে নিজেদের পরিবারকে সময় দেওয়ার চিন্তা বেশিরভাগ রাজনীতিকদের। বাংলা ট্রিবিউনকে রাজনৈতিক দলগুলোর নেতারা বলছেন, বছরের একটি দিনও যদি নিরঙ্কুশ পরিবারকে না দিই, তাহলে দায় থেকে যায়। এছাড়া ঈদের মতো অানন্দ উদযাপন শুধু পরিবারের সঙ্গেই বেশি মানায়।

ডা. একিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী গ্রামে যেতে পারেন

বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর প্রেস সেক্রেটারি জাহাঙ্গীর অালম জানান, বদরুদ্দোজা চৌধুরী রাজধানীর গুলশানের আজাদ মসজিদে পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় শেষে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার মজিদপুর দাইহাটায় গ্রামের বাড়িতে যাবেন এবং সেখানে কিছুটা সময় দেবেন। তবে বি. চৌধুরী ঈদের পরদিন বেলা ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত বারিধারার বাসভবনে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। এছাড়া বাকিটা সময় পরিবারের সঙ্গেই কাটাবেন সাবেক এই রাষ্ট্রপতি।

 

সন্ধ্যায় টেলিভিশন দেখবেন অামির হোসেন অামু

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বরাবরের মতো এবারও ঈদ করবেন ঢাকায়। আবহাওয়া ভালো থাকলে তিনি নামাজ পড়বেন জাতীয় ঈদগাহে। না হলে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে। ঈদের নামাজ শেষে যাবেন বনানী কবরস্থানে জিয়ারত করতে। এরপর গণভবনে প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। এর ফাঁকে যাবেন কয়েকজন আত্মীয় স্বজনের বাসায়। পরে বাসায় ফিরে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে সাক্ষাত করবেন।

সময় সুযোগের অভাবে টিভিতে অনুষ্ঠান দেখা হয় না উল্লেখ করে বর্ষীয়ান এই নেতা বলেন, বাসায় থাকলে টিভিতে খবর ও আলোচনা অনুষ্ঠান দেখেন। অন্যান্য দিনের মতো ঈদের দিনও সন্ধ্যার পর সময় টিভিতে এ ধরনের অনুষ্ঠান দেখা হবে বলে জানান তিনি।

 

সন্ধ্যায় নাতিকে নিয়ে টিভি অার বন্ধুদের সঙ্গে অাড্ডা দেবেন তোফায়েল আহমেদ

বিগত বছরের ধারাবাহিকতায় এবারও গ্রামের বাড়ি ভোলায় ঈদ করছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তোফায়েল আহমেদ জানান, তিনি সব সময়ই গ্রামে ঈদ করতে পছন্দ করেন। নিতান্ত কোনও সমস্যা না হলে প্রতিটি ঈদই তিনি গ্রামে কাটানোর চেষ্টা করেন। এই নেতার গ্রামের বাড়িতে ঈদ করা অনেকটা অভ্যাসে পরিণত হয়েছে গেছে বলে জানান তিনি । তিনি বলেন, সবাইকে নিয়ে মিলেমিশে তিনি একটা দিন কাটিয়ে দেন। সমসাময়িকদের সঙ্গে নিয়ে পুরনো দিনের স্মৃতি মনে করেন। অন্যান্যবারের মতো এবারও এর ব্যতিক্রম হবে না বলে জানান এই নেতা। সন্ধ্যার পর নাতিকে নিয়ে হয়তো টিভির অনুষ্ঠান দেখা হবে বলে জানান তিনি।

 

সময় পেলে টিভি দেখবেন মাহবুব উল অালম হানিফ

ঈদের দিন ঢাকায় থাকছেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব উল আলম হানিফ। গুলশানের আযাদ মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় করে গণভবনে যাবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করতে। এরপর সেখান থেকে বঙ্গভবনে যাবেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়ে। এরপর অন্যকোনও জরুরি কাজ না থাকলে ফিরবেন গুলশানের বাসায়। বন্ধুবান্ধব ও নেতাকর্মীদের সঙ্গে এসময় সাক্ষাত করবেন। ঈদের দিন কমবেশি ঈদের অনুষ্ঠান দেখা হয় জানিয়ে এই নেতা বলেন, সুনির্দিষ্ট করে কী অনুষ্ঠান দেখা হয় সেটা ঠিক করে বলা সম্ভব নয়। সংবাদ দেখার পাশাপাশি কোনও অনুষ্ঠান ভালো লাগলে সেটা দেখব। আর অবশ্যই সেগুলো বাংলাদেশি টিভি চ্যানেলগুলোর কোনও না কোনও অনুষ্ঠান।

 

গ্রাম-শহরে ঈদ কাটাবেন লে. জে. অব. মাহবুবুর রহমান

ঈদের দিনটি দুইভাগে ভাগ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক সেনাপ্রধান লে.জে. অব. মাহবুবুর রহমান। তিনি বলেন, গ্রামের বাড়ি বিরলে সময় দেবেন অাবারও ঢাকায়ও সময় কাটাবেন ঈদের দিন। সবার সঙ্গেই ভাগ করবেন ঈদের অানন্দ । তবে অগ্রাধিকার পাবে পরিবার। তিনি বলেন, ঈদের অানন্দ সবচেয়ে উপলব্ধি হয় পরিবারের সঙ্গে। এই দিনটি টিভি দেখবো না। সুযোগ হলে ম্যাডামের শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে যাব।

 

পরিবার স্বজনদের কাছাকাছি থাকার চেষ্টা করে ইনাম অাহমেদ চৌধুরী

বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ইনাম অাহমেদ চৌধুরী ঈদের দিন সকালে উঠে গোসল করে চা পান করেন। এরপর ঈদগাহে নামাজ অাদায় করে বাসায় ফিরে বাসায় তৈরি মিষ্টি জাতীয় কিছু খান। তিনি বলেন, এরপর বাসায় অতিথিরা অাসেন, তাদের সঙ্গে অাড্ডা চলে। দুপুরের খাবার গ্রহণ করে একটু বিশ্রাম নিই। এরপর বিকালের অাগে-অাগে ছেলে-মেয়েদের বাচ্চাকাচ্চাদের সঙ্গে সময় দেওয়া হয়। মাঝে মাঝে ওয়াইফের সঙ্গে, এই তো। তবে ঈদের দিন রাতে ঘুমানোর অাগে টিভির পর্দায় রাতের খবর দেখে নেন একবার।

ঘরেই থাকবেন মির্জা অাব্বাস

উচ্চ অাদালতের অাদেশে যেকোনও অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকার নির্দেশ রয়েছে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ঢাকা মহানগর বিএনপির অাহ্বায়ক মির্জা অাব্বাসের ওপর। তবে ঈদের দিন নিজ বাসভবন শাজাহানপুরেই অবস্থান করবেন বলে জানান তার স্ত্রী অাফরোজা অাব্বাস। তিনি জানান, ঈদের নামাজ পড়ে বাসায় থাকবেন মির্জা অাব্বাস। সারাদিন কোথাও যাওয়ার অাপাতত ইচ্ছে নাই অাব্বাসের। তবে খালেদা জিয়ার সঙ্গে একবার দেখা করতে পারেন তার গুলশানের বাসায়। তিনি অারও জানান, ঘরে থাকাকালে স্বাভাবিক খাবার গ্রহণ করবেন। অাত্মীয় স্বজনদের সঙ্গে সময় কাটাবেন। এই তো।

সোয়া গার্মেন্টকর্মীদের সময় দেবেন মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি (সিপিবি) মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, অামি যতদূর জানি, সোয়ান গার্মেন্টকর্মীরা এখনও ঈদের বেতন-বোনাস পায়নি। তারা ঈদের দিন প্রেসক্লাবের সামনে রাস্তায় বিক্ষোভ করবে। অামিও তাদের সঙ্গে সময় দেব। তবে সাধারণত ঈদের দিনটি অামি পারিবারিকভাবে কাটাই। পরিবারের সবার সঙ্গে খাওয়া-দাওয়া এবং অাড্ডায় থাকি। গান বা ছবি দেখা, সেটি পরের দিন সময় পেলে হয়। তবে ঈদের দিনটি পরিবারের সঙ্গে বেশি কাটানো হয়।

বাসায় টিভিতে খবর-অনুষ্ঠান অার শুভেচ্ছা বিনিময়ে সময় দেবেন এম অাউয়াল

বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের মহাসচিব এমএ অাউয়াল এমপি বলেন, ঈদের সারাদিন অামি পরিবারের সঙ্গে কাটাই। সকালে সামান্য খাবার খেয়ে জাতীয় সংসদ ভবনের ঈদের নামাজে অংশ নিই। এরপর বাসায় গিয়ে পরিবারের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় দিয়ে শুরু হয় তাদের সময় দেওয়া। মাঝে মাঝে ঘরের কাজে টুকটাক হাত লাগাই। বাসায় নিজের কাছে মানুষেরা অাসলে তাদের অাপ্যায়ন করি। ছোটদের সালামি দিই। ফাঁকে ফাঁকে খবর দেখি। ফেসবুকেও সময় দিই। বন্ধুদের কমেন্টস দেখি, শুভেচ্ছা দেখি। সন্ধ্যার পর নিজের পছন্দের একটি এলাকায় গিয়ে ফুটপাতের অসহায় ছেলেমেয়েদের কয়েকজনকে খাবার দিয়ে অাসি।

 

শুভেচ্ছা বিনিময়ে সময় দেন জোনায়েদ সাকি

গণসংহতি অান্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি বলেন, দলীয় নেতাকর্মীরা যারা ঈদের দিন ঢাকায় থাকেন, তাদের কারও বাসায় যাওয়া হয়। অনেকে বাসায় অাসেন, তাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করি। পরিবারকে সময় দিই। রাজনৈতিক ও পারিবারিক বন্ধুদের কোনও অাড্ডায় যোগ দিই।

 

মাওলানা মাহফুজুল হকের পুরো দিন স্বজনদের

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মহাসচিব মাওলানা মাহফুযুল হক বলেন, ঈদে আমি কেরানীগঞ্জের ঘাটারচর ঈদ মাঠে নামাজ পড়াই। সেখানেই আব্বার কবর রয়েছে, আব্বার কবর জিয়ারত করে মোহাম্মদপুরে আমার বাসায় ফিরে আসি। এছাড়া আমার ভাই-বোনরা কেউ কেউ ঢাকায় থাকেন। তাদের বাসায় যাবো। পুরোটা সময় আত্মীয় স্বজনদের সঙ্গে কাটবে।

গ্রামের বাড়িতে মুফতি ফয়জুল্লাহ

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় ঈদ উদযাপন করবেন ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ। তিনি বলেন, এবার ঈদ‌‌ে নিজের গ্রামে বাড়িতেই উদযাপন করবো। সাধারণত ঈদে বাড়িতে গেলে গ্রামের মসজিদে ঈদের নামাজ পড়াই। এবারও ইচ্ছে আচ্ছে ঈদের নামাজ পড়াবো। ঈদে গ্রামে গেলে মানুষের সঙ্গে মিলিত হওয়ায় সুযোগ হয়। আমি ঈদের দিন নামাজ পড়েই গ্রামের মানুষদের সঙ্গে কথা বলি। কবরস্থানে গিয়ে জিয়ারত করি। এছাড়া স্থানীয় নেতাকর্মীরা আসেন দেখা করতে, তাদ‌‌‌ের সঙ্গে সময় কাটাই, খোঁজ খবর নেই। অন্যরকম সময় কাটে গ্রামে। এছাড়া আত্মীয় স্বজনদের সঙ্গে ভালো সময় কাটে। বাবা-মা সবাইকে নিয়ে অন্যরকম ভালো সময় পার হয়। ঈদের তৃতীয় দিনে বাশখালিতে একটি ঈদ পুণর্মিলনী হবে ইচ্ছা আছ‌‌‌ে সেখানে যোগ দেওয়ার।

এছাড়া জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, বিরোধী দলীয় নেত্রী রওশন এরশাদ ঢাকাতেই ঈদ করবেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে। তবে ঠিক কী করবেন, এ নিয়ে কোনও বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি। বিভিন্ন মামলায় অাসামি থাকায় জামায়াতের প্রায় সব শীর্ষনেতারা পলাতক থাকবেন এবং তারা ঈদগাহে ঈদের নামাজ পড়া থেকে বিরত থাকবেন বলেও কয়েকটি দলীয় সূত্র জানায়।

তবে কারাগারে অাটক রাজনৈতিক দলগুলোর প্রায় ২০ জনের মতো প্রথম সারির নেতারা ঈদের অানন্দ থেকে বঞ্চিত হবেন। বিএনপি-জামায়াত, নাগরিক ঐক্যসহ বিভিন্ন দলের নেতারা জেলে রয়েছেন বিভিন্ন মামলার অাসামি হয়ে।

/এএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।