রাত ০২:৪১ ; রবিবার ;  ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০  

লেবাননে প্রবাসীর ইফতার

প্রকাশিত:

সাইফ উদ্দিন ॥

প্রবাস জীবনে পরিবারের বাইরে সৃষ্টি হয় আরেকটি পরিবার। তাদের সঙ্গেই ভাগ করা হয় প্রবাস জীবনের আনন্দ বেদনার কাব্য। রমজানের সময় একসঙ্গে ইফতার করতে গিয়ে এই বন্ধন হয় আরও দৃঢ়। সুদূর লেবাননে ইফতারের আয়োজন এবার শুধু বাংলা ট্রিবিউন লাইফস্টাইলের পাঠকের জন্য।

লেবানন প্রায় ১০৪৫২ বর্গ কিলোমিটার এর একটি দেশ । যেখানে প্রাচ্য, আরো ভালো করে বললে মধ্য প্রাচ্য মিশেছে পশ্চিমের পাশে। ভুমধ্যসাগরের একদম কোলঘেষা এবং উত্তরে সিরিয়া আর দক্ষিণে ইসরাঈল দ্বারা বেষ্টিত এই দেশটিতে কাজের জন্য এখানে রয়েছেন অনেকেই দীর্ঘ সময় ধরে। এখানের আবহাওয়া বেশ চমৎকার। তাই মধ্যপ্রাচ্যের দেশ থেকে পর্যটক আসে লেবাননে তেমনি ইউরোপ থেকেও আসে। সেজন্যই পর্যটন হচ্ছে এদের প্রধান আয়ের মাধ্যম। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন যুদ্ধে বিদ্ধস্থ একটি দেশ শুধু মাত্র পর্যটনকে কেন্দ্র করে এগিয়ে চলছে। শৌখিনতার দিক থেকেও এরা কম নয়। এদের শৌখিনতার অন্যতম প্রমাণ পাওয়া যায় এদের খাবার দেখে। বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী পুরান ঢাকাইয়াদের মতো লেবাননের মানুষদের ইফতারে থাকে নানা রকম খাবারের বাহার। ১০/১২ পদের খাবারের পদ না থাকলে তাদের ইফতার জমে না।

মজার লাহমা 

কয়েকজন লেবানিজ বন্ধুদের ইফতারিতে পেয়ে গেলাম তাদের ইফতারির নমুনা। প্রায় তের পদের খাবার তাদের মেন্যু তে। ফাসুলী, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই, চিকেন মিসেরী, ব্রেড, বারাজী সিওনীড, ফাতুস, বেমী, চিজ পিজ্জা, খেজুর, লাহমা, ফাহিত্তা, জ্যুস, স্যুপ। ফাসুলী হচ্ছে সীমের বিচি দিয়ে একধরনের রান্না করা সালাদ এর সাথে বাংলাদেশের মতো টমেটো, শসা, ধনিয়াপাতা দিয়ে তৈরি একধরনের সালাদ যা ফাতুস নামে পরিচিত। মাংসের তৈরি বিভিন্ন ধরনের খাবার থাকে তাদের আইটেম এ। মুরগীর মাংস দিয়ে তৈরি চিকেন মিসেরী এবং ফাহিত্তা। গরুর মাংস দিয়ে তৈরি কারী আইটেম বেমী যেমন রয়েছে তেমনি রয়েছে লাহমা নামের কাবাব আইটেম। লেবাননের একধরনের রুটি এদের খাবারের তালিকায় থাকবেই। বাংলাদেশে যেমন তাওয়ায় সেকা রুটি আছে তেমনি এদেরও আছে। তবে আমাদের দেশের তুলনায় অন্যরকম আকার এবং স্বাদে।

 ফাসুলী হচ্ছে সীমের বিচি দিয়ে একধরনের রান্না করা সালাদ

প্রথমেই বলেছি এখানে পশ্চিম এসে মিশেছে। তাই কিছু পশ্চিমা খাবার ও থাকে এদের তালিকায়। ফ্রেঞ্চ ফ্রাই এবং চিজ পিজ্জা তারই প্রমাণ। দুই তিন পদের ফল না থাকে ইফতারে। তাই বিভিন্ন তাজা ফলের জ্যুস এখানকার ইফতারে থাকে। তামার বা খেজুর সকল মুসলমানদের ইফতারে থাকে। সব শেষে বিভিন্ন ধরনের ডালের সংমিশ্রণে একধরনের স্যুপ ও রয়েছে আমাদের দেশের হালিমের মতো অনেকটা। সবশেষে বলা যায় বাংলাদেশীদের বলা হয় শৌখিন জাতি, তবে লেবানিজরাও কম শৌখিন না। বাংলাদেশিদের ইফতারে সময় কাটে কর্মক্ষেত্র‌‌‌ে। তবে ছুটির দিনে নিজেদের মতো করে বাংলাদেশি খাবার রান্না করে তারা। বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে কেউ কেউ রেস্টুরেন্টে যায় দল বেধে।

 

আরএফ 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।