সন্ধ্যা ০৭:০৪ ; বৃহস্পতিবার ;  ১৮ জুলাই, ২০১৯  

ননস্টিক তৈজসপত্রের যত্নআত্তি

প্রকাশিত:

লাইফস্টাইল ডেস্ক।। 

আধুনিক রান্নাঘরে ননস্টিক তৈজসপত্রই বেশি থাকে। ঈদের সময় এগুলোর উপর দিয়ে কম ধকল যায় না। অতিরিক্ত ব্যবহার কিংবা তাড়াহুড়োয় যেন নষ্ট না হয়ে যায় আপনার দামী তৈজসপত্রটি। জেনে নিন ননস্টিক তৈজসপত্রের খুঁটিনাটি বিষয়ঃ     

  • রান্না শেষ হওয়ার সাথে সাথে গরম অবস্থায় ননস্টিকের বাসন পানিতে ডুবাবেন না। ঠাণ্ডা হওয়ার পর তারপর পরিষ্কার করুন
     
  •  ননস্টিকের হাড়ি বা প্যান চুলার উপর খুব বেশি আঁচে দীর্ঘক্ষণ রাখবেন না
     
  • অনেক সময় দীর্ঘদিন ব্যবহারের ফলে ননস্টিক বাসনে দাগ পড়ে যায়। এ দাগ দূর করার জন্য অল্প পানির সাথে সিরকা মিশিয়ে চুলার মৃদু আঁচে কয়েক মিনিট নাড়ুন। দাগ উঠে যাবে
     
  • ননস্টিক কুকওয়্যারের ঢাকনি হিসেবে ননস্টিক প্যানকভার ব্যবহার করতে পারেন
     
  • ননস্টিকে রান্নার সময় তুলনামূলক কম তেল দিন। এ ধরণের তৈজসের সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো এতে তলায় লেগে যাওয়ার ভয় থাকে না।

  • ননস্টিকের তৈজসপত্র পরিষ্কার করার আগে কিছুক্ষণ পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। তারপর নরম স্পঞ্জ দিয়ে হালকা করে ঘষে পরিষ্কার করুন। কখনো ধারালো কিছু দিয়ে কিংবা বল প্রয়োগ করে এ ধরণের তৈজসপত্র পরিষ্কার করতে যাবেন না। এতে স্ক্র্যাচ পড়ে যাওয়ার আশংকা থাকে।
     
  • ননস্টিকে রান্নার সময় স্টিলের খুন্তি ব্যবহার না করলে ভালো করবেন। কারণ অসাবধানতায় খোঁচা লেগে বাসনের উপরের অংশে থাকা এনামেলের কোটিং উঠে যেতে পারে। প্লাস্টিক বা কাঠের চামচ ব্যবহার করাই নিরাপদ
     
  • খুব বেশি টক খাবার ননস্টিকের আয়ু কমায়। তাই এ ধরণের খাবার ননস্টিকে রান্না না করাই ভালো
     
  •  ননস্টিকের তৈজস চুলা থেকে নামানোর সময় আশেপাশের অংশ না ধরে প্লাস্টিকের হাতল ধরে তারপর নামান
     
  • ​অ্যালুমিনিয়ামের বাসন কোসনের সাথে ননস্টিকের তৈজসপত্র না রাখাই ভালো।
     
  • ছাই, বালি বা অতিরিক্ত ক্ষারযুক্ত সাবান দিয়ে ননস্টিক পরিষ্কার করা অনুচিত। লিকুইড সাবান দিয়ে পরিষ্কার করুন ননস্টিকের বাসন কোসন
     
  • পরিষ্কার শেষে শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে নির্দিষ্ট জায়গায় তুলে রাখুন



এনএ

 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।