রাত ১০:০০ ; রবিবার ;  ২৬ মে, ২০১৯  

প্রকাশিত সংবাদ প্রসঙ্গে বিক্রয় ডট কমের বক্তব্য

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট॥

গত ২৫ জুন 'বিক্রয় ডটকম: প্রতারণা ও চোরাই পণ্যের নতুন প্লাটফর্ম' শিরোনামে বাংলা ট্রিবিউনে একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনের সাপেক্ষে নিজেদের অবস্থান জানিয়ে বক্তব্য দিয়েছে বিক্রয় ডটকম। প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে কর্তৃপক্ষ স্বীকার করেছে যে তাদের সাইটটিতে যেখানে প্রতিদিন কয়েক হাজার বিজ্ঞাপন পোস্ট হয়ে থাকে, সেখানে দু'একটি দুর্ঘটনা যে ঘটছে না- তা হলফ করে বলা যায় না।

কর্তৃপক্ষ আরও জানিয়েছে কেউ যদি প্রতারণার শিকার হন কিংবা কোনও পণ্য সম্পর্কে তার সন্দেহ হয়, তিনি এ বিষয়ে অভিযোগ করলেই সে বিজ্ঞাপন সরিয়ে দেওয়া হয়।

বিক্রয় ডটকম দাবি করেছে, তারাই একমাত্র অনলাইন মার্কেট প্লেস যাদের ফ্রড বিজ্ঞাপন সনাক্তের আলাদা টিম আছে।

বেআইনিভাবে বিভিন্ন প্রাণী বিক্রির ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ দাবি করেছে, বিক্রয় ডট কমে গৃহপালিত পশু-পাখি বিক্রয় করা যায়। এর মধ্যে আইন অনুসারে যে সব পশু পাখি ক্রয় বিক্রয় নিষিদ্ধ তা কর্তৃপক্ষের নজরে এলেই তুলে দেওয়া হয়। এ ছাড়া প্রতিষ্ঠানটি নিজেদের কোনও ই-কমার্স সাইট নয় দাবি করে বলে পণ্যের আইনগত নিশ্চয়তা বিধান করা বিক্রেতার দায়িত্বের মধ্যেও পড়ে।

এ ছাড়া ওয়েবসাইটে প্রতিষ্ঠানের ঠিকানা না থাকার প্রসঙ্গে বিক্রয় ডট কম বলেছে, এ ধরণের প্রতিষ্ঠানের ঠিকানা প্রকাশ করা হলে বহু বিজ্ঞাপনদাতা অফিসে এসে ভিড় করতে পারেন। এতে বিড়ম্বনা সৃষ্টির আশঙ্কা থাকায় বিক্রয়ের অফিসের ঠিকানা ওয়েবসাইটের প্রকাশ করা হয় না।

বিক্রয় ডট কমের পরিচালক (মার্কেটিং) মিশা আলী স্বাক্ষরিত ওই বক্তব্যে আরও বলা হয়, যদি কেউ প্রতারিত হয়ে থাকেন, তিনি প্রতারণাকারীর বিরুদ্ধে মামলা করবেন। মামলাকারী পণ্য ক্রয়ের আগে বা পরে বিজ্ঞাপনের একটি স্ক্রিন শট রাখলেই সহজে তা প্রমাণ হিসেবে  উপস্থাপন করতে পারেন। পুলিশ অধিকতর তদন্তের জন্য প্রয়োজন হলে বিক্রয় ডট কমের কাছে তথ্য চাইতে পারেন।

বিক্রয় ডট কম প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদানের জন্য উপস্থিত রয়েছে বলেও জানায় প্রতিষ্ঠানটি। 

 

/এমআর/এফএ/

 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।